Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » সোমালিয়ায় আল-শাবাবের হামলায় নিহত ১৯




সোমালিয়ার মধ্যাঞ্চলে সশস্ত্র গোষ্ঠী আল-শাবাবের হামলায় ১৯ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। এ সময় তারা খাদ্যপণ্য বোঝাই ট্রাকও ধ্বংস করে। দেশটির আধা স্বায়ত্তশাসিত হিরশাবেল রাজ্যের হিরান এলাকায় শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) রাতে সশস্ত্র গোষ্ঠীটি এ হামলা চালায়। রাজ্য কর্মকর্তারা এ তথ্য নিশ্চিত করেন। শনিবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে আসে। শনিবার ওই এলাকার বাসিন্দারা জানান, বালাডওয়েন শহর থেকে মহাসের দিকে যাওয়া কয়েকটি খাদ্যপণ্য বোঝাই ট্রাকে হামলা চালানো হয়। স্থানীয়রা আরও জানান, আগের রাতে সন্ত্রাসীরা নির্বিচারে নিরীহ বেসামরিক লোকজনকে হত্যা করে। কতজন নিহত হয়েছে, তা তাদের জানা নেই। সংবাদমাধ্যমকে এক ব্যক্তি জানান, ১৯ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। হিরান অঞ্চলের গভর্নর আলি জেইতি বলেন, মরদেহ এখনও পাওয়া যাচ্ছে। তাদের মধ্যে শিশু ও নারীরা রয়েছেন। এই সংখ্যা ২০ ছাড়িয়ে যেতে পারে। রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সোনার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আল-শাবাবের যোদ্ধারা ওই ট্রাকগুলোতে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং যানগুলোতে থাকা অধিকাংশ বেসামরিক ব্যক্তিকেই হত্যা করে। আরও পড়ুন: সোমালিয়ায় ফের মার্কিন সেনা মোতায়েনের নির্দেশ পরে এক বিবৃতিতে আল-শাবাব জানায়, তাদের হামলার লক্ষ্য ছিল স্থানীয় একটি উপদলের যোদ্ধারা, যারা সম্প্রতি সরকারি বাহিনীকে সাহায্য করেছে। তারা আরও জানায়, ওই উপদলের সেনা এবং তাদের জন্য জিনিসপত্র নিয়ে যাওয়া ২০ জনকে হত্যা এবং ৯টি যান ধ্বংস করা হয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট আল-শাবাব এক দশকেরও বেশি সময় ধরে সোমালিয়ার কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে আসছে। তারা আফ্রিকার এ দেশটিতে কট্টর ইসলামি শরিয়াভিত্তিক রাষ্ট্র কায়েম করতে চাইছে। এই জঙ্গিগোষ্ঠীটি নিয়মিতই সোমালিয়ার সামরিক বাহিনী ও বিভিন্ন বেসামরিক স্থাপনায় বোমা ও বন্দুক হামলা চালিয়ে আসছে। আরও পড়ুন: ৩০ ঘণ্টা পর জিম্মিদশার অবসান সোমালিয়ার হোটেলে গত মাসেও রাজধানী মোগাদিসুতে প্রায় ৩০ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে একটি হোটেল অবরোধ করে হামলা চালায় আল-শাবাব। ওই হামলায় ২০ জন নিহত এবং ১০০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়। ৩০ ঘণ্টার যুদ্ধ শেষে সরকারি বাহিনী ওই হোটেলের নিয়ন্ত্রণ ফিরে পায় এবং জিম্মিদের মুক্ত করে






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply