Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » পাকিস্তানে বন্যায় আক্রান্ত ১ কোটি ৬০ লাখ শিশু




পাকিস্তানে প্রবল বন্যায় ১ কোটি ৬০ লাখ শিশু আক্রান্ত হয়েছে। বর্তমানে তাৎক্ষণিক ও জীবনরক্ষাকারী সহায়তা দরকার ৩৪ লাখ শিশুর। জাতিসংঘের জরুরি শিশু তহবিল ইউনিসেফ এমন তথ্য দিয়েছে। শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) এক বিবৃতিতে পাকিস্তানে সংস্থাটির প্রতিনিধি আবদুল্লাহ ফাদিল বলেন, বন্যাকবলিত অঞ্চলগুলোর পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ। সেখানে অপুষ্টিতে থাকা শিশুরা ডায়রিয়া, ডেঙ্গু জ্বরসহ বিভিন্ন ত্বকপ্রদাহে ভুগছে। খবর ডন অনলাইনের। সম্প্রতি সিন্ধু প্রদেশের বিভিন্ন বন্যা আক্রান্ত এলাকায় দুদিনের সফরে যান তিনি। সরেজমিনে পরিস্থিতি দেখার পর এক সংবাদ সম্মেলনে আবদুল্লাহ ফাদিল বলেন, বন্যায় এখন পর্যন্ত ৫২৮ শিশুর প্রাণহানি ঘটেছে। কিন্তু এসব শিশুকে বাঁচানোর দরকার ছিল। প্রবল বন্যায় ভয়াবহ বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছে পাকিস্তান। বিভিন্ন দেশের কাছে সহায়তাও চেয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। ইউনিসেফ বলছে, আন্তর্জাতিক সহায়তা অব্যাহত রাখা দরকার। শুক্রবার পাকিস্তানে ৭০ লাখ মার্কিন ডলার সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে জাপান। বন্যার্তদের জন্য এছাড়াও ৩০ লাখ কানাডীয় ডলার দেয়ার অঙ্গীকার করেছে কানাডা। আবদুল্লাহ ফাদিল বলেন, প্রয়োজনীয় সহায়তা না পেলে বহু শিশুকে বাঁচানো অসম্ভব হয়ে পড়বে। অনেক মা রক্তশূন্যতা ও অপুষ্টিতে ভুগছেন। তাদের বাচ্চাদের ওজনও কম। মায়েরা এতোটাই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন যে তারা বাচ্চাদের বুকের দুধও খাওয়াতে পারছেন না। আরও পড়ুন: পাকিস্তানে মানবিক বিপর্যয়ের সতর্কতা জারি বন্যায় লাখ লাখ মানুষকে ঘরবাড়ি ছেড়ে চলে যেতে হয়েছে। তাদের সহায়-সম্পদ পানিতে তলিয়ে গেছে। সূর্যের তাপ থেকে রক্ষা পেতে তাদের কাছে ছেঁড়া কাপড় ছাড়া আর কিছুই অবশিষ্ট নেই। এদিকে, তাপমাত্রাও চল্লিশ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে গেছে। ইউনিসেফ প্রতিনিধি বলেন, রাস্তার পাশে সরু ফালি কাপড় টানিয়ে তার নিচে আশ্রয় নিয়েছে পরিবারগুলো। তাদের শিশুরা মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়েছে। বিস্তৃত নিম্নাঞ্চলে পানি আটকে আছে। চোখ যতদূর যায়, ততদূর পানি ছাড়া আর কিছু দেখা যায় না। পাশাপাশি সাপ, বিছা ও মশার উপদ্রব তো রয়েছেই। তিনি জানান, বন্যায় অনেক শিশু নিখোঁজ হয়েছে। পানি সরে যাওয়ার পর সেই সংখ্যা বাড়তেই থাকবে। আক্রান্ত শিশু ও পরিবারগুলোকে সহায়তায় সর্বাত্মক চেষ্টা করছে ইউনিসেফ। এছাড়া, পানিবাহিত রোগ থেকেও তাদের সুরক্ষা দেয়ার চেষ্টা চলছে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ হুঁশিয়ারি করে বলেছেন, দেশে আগে থেকেই অর্থনৈতিক সংকট ও রাজনৈতিক সংঘাত চলছে। এরইমধ্যে প্রলঙ্করী বন্যা ভয়াবহ চ্যালেঞ্জ তৈরি করছে তার সরকারের জন্য।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply