Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » ইউক্রেনে জল্লাদ হানা, গর্ভবতী যুবতী স্বামীকে আঁকড়ে মরে কাঠ! যুদ্ধের মর্মান্তিক ছবি...




রাশিয়ার হামালার পর প্রাণ নিয়ে দেশ ছেড়ে পালাতে দেখা দিয়েছিল ইউক্রেনের মানুষজনকে। বাসস্টপে লম্বা লাইন, ট্রেন স্টেশনের বাইরে থিকথিকে ভিড়, মানুষজন ছুটছেন পোল্যান্ড সীমান্তের দিকে। এই ছবি বাইরেও কিছু খণ্ডচিত্র উঠে আসছে তাদের, যারা মুড়ি মুড়কির মতো রুশ বোমাবর্ষণের পরও দেশ ছাড়েননি। রাজধানী কিয়েভে ধরা পড়ল সেরকমই এক মর্মান্তিক দৃশ্য। সোমবার কিয়েভে ড্রোন হামলা চালিয়েছিল রাশিয়া। রাজধানীর জাইলিনাস্কা স্ট্রিটে স্বামীর সঙ্গে থাকতেন ৬ মাসের গর্ভবতী ভিক্টোরিয়া ও তাঁর স্বামী বোদান। ড্রোন হামালায় মৃত্যু হয়েছে ২ জনেরই। বোমায় আঘাতে চুরমার হয়ে গিয়েছে তাদের বাড়িটি। ওই হামলায় পর সরকারি উদ্ধারকারী দল যখন ভিক্টোরিয়াদের বাড়িতে পৌংছয় তখন দেখা যায় দুজনেরই মৃত্যু হয়েছে। স্বামীর বাহুডোরই শেষবারের মতো শ্বাস নিয়েছেন ভিক্টোরিয়া।

সোশ্য়াল মিডিয়ায় ইউক্রেন-সহ ইউরোপের একাধিক জায়গা তোলপাড় হয়েছে এই মৃত্যু নিয়ে। পুতিনকে নিশানা করে প্রশ্ন উঠছে, আর কত মৃত্যু হলে আপনি থামবেন? ভিক্টোরিরায় বহু সহকর্মী সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, আজ ভিক্টোরিয়ার মৃতদেহ মিলেছে তার স্বামীর বাহুবন্ধনে। ওরা তাদের শিশুর জন্য অপেক্ষা করেছিল। রাশিয়ার বোমা সব কেড়ে নিল। উল্লেখ্য, গত ১৭ অক্টোবর কিয়েভ সহ ইউক্রেনের একাধিক জায়গায় তীব্র হামলা চালায় রাশিয়া। এদির ভোরে শুধু কিয়েভেই ৪ বার বোমা হামলা চালানো হয়। তাতে প্রবল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অধিকাংশ জায়গায় বোমা ফেলা হয়েছে আবাসিক এলাকায়। একটি ট্রেন স্টেশনও ভেঙে চুরমার হয়ে গিয়েছে। গুড ওয়াইন নামে একটি ওয়াইন শপ চেইন-এ কাজ করতেন ভিক্টোরিয়া। গর্ভে ছিল ৬ মাসের শিশু। সেই শিশুর পৃথিবীর আলোয় আসার স্বপ্নও শেষ। গুড ওয়াইন তাদের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে লিখেছে, কোম্পানির আজকের দিনটা খুবই অন্ধকারময়। আজ আমরা ভিকাকে(ভিক্টোরিয়ার ডাক নাম) হারালাম। আমাদের পরিবারের একজন সত্, সহানুভূতিশীল মানুষ আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। খুব খারাপ লাগছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply