Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » চ্যাম্পিয়নস লিগ সেল্টিককে গোলে ভাসাল রিয়াল




গোল, গোল এবং গোল! এমন পণ করেই যেন সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে আজ রাতে মাঠে নেমেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। চ্যাম্পিয়নস লিগে আগের ম্যাচে হারের জ্বালা পুরোটাই তারা মিটিয়েছে সেল্টিকের ওপর। স্কটিশ প্রতিপক্ষকে ভাসিয়েছে গোলবন্যায়। ম্যাচে রিয়াল জিতেছে ৫-১ গোলে। কিছু সহজ সুযোগ হাতছাড়া না হলে এ ব্যবধান আরও বড় করতে পারত কার্লো আনচেলত্তির দল। চ্যাম্পিয়নস লিগে স্প্যানিশ দলগুলোর বিপক্ষে শেষ ৫ ম্যাচের প্রতিটিতে হেরেছিল সেল্টিক। ব্যতিক্রম হয়নি এই ম্যাচেও। রিয়ালের কাছে রীতিমতো বিধ্বস্ত হয়ে তলানিতে থেকে এবারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগ অভিযান শেষ করেছে তারা। অন্য ম্যাচে শাখতার দোনেৎস্ককে ৪-০ গোলে উড়িয়ে নকআউটে রিয়ালের সঙ্গী হয়েছে আরবি লাইপজিগ। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এদিন এগিয়ে যেতে ৬ মিনিটের বেশি সময় লাগেনি রিয়ালের। সেল্টিক ডি-বক্সে দলটির সেন্টার ব্যাক মর্টিজ জেনজের হাতে বল লাগলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। স্পট কিকে লক্ষ্যচ্যুত হননি লুকা মদরিচ। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক জো হার্টকে উল্টো পথে পাঠিয়ে দলকে লিড এনে দেন ক্রোয়াট তারকা। ভিনিসিয়ুসের গোল উদ্‌যাপন ভিনিসিয়ুসের গোল উদ্‌যাপনছবি: টুইটার এগিয়ে গিয়ে ম্যাচে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে রিয়াল। এ সময় বাঁ প্রান্ত দিয়েই রিয়ালের বেশিরভাগ আক্রমণগুলো তৈরি হচ্ছিল। তবে সেল্টিকের কয়েক স্তরের রক্ষণবুহ্যে শুরুতে একাধিকবার প্রতিহত হয়েছে রিয়ালের প্রচেষ্টা। ম্যাচের ১৪ মিনিটে প্রতি-আক্রমণ থেকে তখন পর্যন্ত ম্যাচের সবচেয়ে সহজ সুযোগটি নষ্ট করে সেল্টিক। সতীর্থ রিও হাতাতের দারুণ এক পাস থেকে খালি জায়গায় বল পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি ডাইজেন মায়েদা। ১৯ মিনিটে ব্যাক পোস্টে ভিনিসিয়ুস জুনিয়রের শট অবিশ্বাস্য দক্ষতায় ঠেকিয়ে দেন হার্ট। ওপেন প্লে থেকে গোল না আসলেও রিয়ালকে গোলের উপলক্ষ তৈরি করে দিচ্ছিল সেল্টিকই। ২০ মিনিটে আবারও রিয়ালকে পেনাল্টি উপহার দেয় সেল্টিক। এবার বল হাতে লাগান ম্যাট ও’রেইলি। পেনাল্টি থেকে এবার গোল করেন রদ্রিগো। এদিন ২০ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডের মধ্যে দুটি পেনাল্টি গোল হজম করেছে সেল্টিক। চ্যাম্পিয়নস লিগে এর আগে কোনো দল প্রতিপক্ষকে এত কম সময়ে দুটি পেনাল্টি উপহার দেয়নি।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply