Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » আস্থাভোটে উতরে গেলেন আনোয়ার ইব্রাহিম




মালয়েশিয়ার পার্লামেন্টে আস্থাভোটে উতরে গেলেন প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিম। সোমবার (২০ ডিসেম্বর) দেশটির পার্লামেন্টে এক ভোটাভুটিতে প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা দেখাতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। খবর আল জাজিরার। গত মাসের সাধারণ নির্বাচনের মাধ্যমের পর জোট সরকার গড়েছেন আনোয়ার ইব্রাহিম। তবে ক্ষমতা পোক্ত করতে তাকে পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে পাস করার প্রয়োজন দেখা দেয়। অবশেষে সেই পরীক্ষাতেও সফলভাবে উতরে গেলেন তিনি। সোমবার পার্লামেন্টের ২২২ আসনের নিম্নকক্ষে বিশেষ অধিবেশনে আস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হয়। উপপ্রধানমন্ত্রী দাতুক সেরি ফাদিল্লাহ ইউসুফ প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন। পরে ক্ষমতাসীন ও বিরোধীপক্ষের ১২ জন আইনপ্রণেতা প্রস্তাবটি নিয়ে আলোচনায় অংশ নেন। শেষ পর্যন্ত আইনপ্রণেতাদের কণ্ঠভোটে উতরে যান প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার। এ সময় জোটসঙ্গীরাও তাকে সমর্থন দেন। কয়েক বছরের রাজনৈতিক অচলাবস্থা কাটিয়ে উঠতে গত মাসে মালয়েশিয়ায় জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী মূল দুই জোটের কোনোটি ২২২ আসনের পার্লামেন্টে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। সরকার গড়তে প্রয়োজন ছিল ১১২টি আসন। নির্বাচনে আনোয়ার ইব্রাহিমের পাকাতান হারাপান (পিএইচ) জোট সর্বোচ্চ ৮২টি আসনে পায়। আর সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিনের দল পেরিকাতান ন্যাসিওনাল (পিএন) পায় ৭৩টি আসন। বিদায়ী ক্ষমতাসীন জোট বারিসান ন্যাসিওনাল ৩০টি আসন পায়। আরও পড়ুন: আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যমে বাংলাদেশিদের মেসি-বন্দনার খবর কিন্তু তারা কোনো জোটকে সমর্থন না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলে কোনো পক্ষই সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারেনি। এতে দেশটির রাজনৈতিক পরিস্থিতি জটিল হয়। এরপর রাজনৈতিক অচলাবস্থা কাটাতে উদ্যোগ নেন মালয়েশিয়ার সুলতান আবদুল্লাহ সুলতান আহমাদ শাহ। দলগুলোর নেতাদের সঙ্গে বসে জাতীয় ঐক্যের সরকার গঠনের প্রস্তাব দেন তিনি। আগের সরকারপ্রধানদের সঙ্গে পরামর্শ করে ৭৫ বছর বয়সী আনোয়ার ইব্রাহিমকে মালয়েশিয়ার দশম প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ দেন। আনোয়ার ইব্রাহিম ছোট রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে একটি চুক্তি করেছেন। এসব দলের নেতারা দেশের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, অর্থনৈতিক অগ্রগতি, সুশাসন প্রতিষ্ঠা, সংখ্যাগরিষ্ঠ মালয় সম্প্রদায়ের অধিকার রক্ষার বিষয়ে আনোয়ার ইব্রাহিমকে সব ধরনের সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। এজন্য নিজের প্রশাসনকে ‘জাতীয় ঐক্যের সরকার’ বলে উল্লেখ করেছেন আনোয়ার ইব্রাহিম। এবার পার্লামেন্টের আস্থা ভোটে জয়ী হয়ে নিজের রাজনৈতিক অবস্থান আরও জোরদার করলেন আনোয়ার ইব্রাহিম। বিশ্লেষকদের অনেকের মতে, ২০০৮ সালের পর রাজনৈতিকভাবে মালয়েশিয়ার সবচেয়ে ক্ষমতাশালী প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন তিনি। কারণ চুক্তির ফলে বেশির ভাগ রাজনৈতিক দল পার্লামেন্টে আনোয়ার ইব্রাহিম সরকারের উত্থাপিত যেকোনো বিল পাসের ক্ষেত্রে বিরোধিতা করা থেকে বিরত থাকবেন বলে মনে করা হচ্ছে। আরও পড়ুন: করোনা: চীনে ফের বাড়ছে সংক্রমণ-মৃত্যু মালয়েশিয়ার পার্লামেন্টের ভোটাভুটিতে আনোয়ার ইব্রাহিমের মনোনীত স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার প্রার্থীও জয়ী হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আনোয়ারের দলের বর্ষীয়ান রাজনীতিক ও সাবেক চিফ হুইপ জোহারি আবদুল ১৪৭ ভোট পেয়ে স্পিকার হয়েছেন। আর ডেপুটি স্পিকার হয়েছেন মাদাম অ্যালিস লেউ। তিনি সরকারের জোটসঙ্গী ডেমোক্রেটিক অ্যাকশন পার্টির (ডিএপি) রাজনীতিক।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply