Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » মেসিদের সংবর্ধনা মাঝপথে স্থগিত




উৎসবে ভাসছে আর্জেন্টিনা। প্রায় তিন যুগ পর বিশ্বকাপ জিতেছে তারা। এ অবিস্মরণীয় কীর্তিতে গোটা দেশে আনন্দের বন্যা বইছে। কাতার বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্সকে হারিয়ে শিরোপা জিতে লিওনেল মেসিরা। এরপর থেকে দেশটির মানুষ অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় ছিলেন বিশ্বজয়ী বীরদের বরণ করে নিতে। কাঙ্ক্ষিত ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরেন আর্জেন্টিনার সোনার ছেলেরা। বিশ্বকাপজয়ী বীরেরা কাতারের রাজধানী দোহা থেকে রাষ্ট্রীয় বিমানযোগে যাত্রা শুরু করেন। এরপর ইতালির রাজধানী রোমে যাত্রাবিরতি করে বিমানটি। বিশ্বকাপ জয়ী দল দেশে পা রাখার পর ছাদখোলা বাসে সংবর্ধনা দেয়া আর্জেন্টিনা, হয় শোভাযাত্রাও। কিন্তু মাঝপথে সেই শোভাযাত্রা বন্ধ হয়ে যায় নিরাপত্তাজনিত কারণে। মেসিরা বিশ্বকাপ ট্রফি হাতে করে ছাদখোলা বাসে উদযাপন করছিলেন। এ সময় লাখো লাখো সমর্থক তাদের ঘিরে ধরে। কেউ কেউ ফুটওভার ব্রিজ থেকেও তাদের উদযাপন দেখছিলেন। সেখান থেকে আর্জেন্টিনার টিম বাসের ওপর কয়েকজন পড়েও যান। শুরু হয় বিশৃঙ্খল অবস্থা। মেসিরাও পড়েন নিরাপত্তাজনিত সমস্যায়। ফলে শোভাযাত্রাই বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। খবর ডেইলি মেইলের। আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি চিকুই তাপিয়ে এক টুইটে বলেছেন, ‘নিরাপত্তাজনিত কারণে আইনশৃঙ্ক্ষলা বাহিনী আমাদের উদযাপন বন্ধ করতে বলেছে। এটা আমাদের জন্য লজ্জার বিষয়।’ বুয়েনোস আইরেসে উদযাপনের সময় মেসিরা বড় দুর্ঘটনা থেকেও বাঁচেন। রাস্তায় গভীর রাতে জড়ো হওয়া হাজার হাজার ভক্ত-সমর্থকের অভিনন্দনের জবাব দিচ্ছিলেন মেসিরা। বাসের এক কোণে কিছুটা উঁচু জায়গায় মেসির সঙ্গে বসেছিলেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, নিকোলাস ওতামেন্দি, রদ্রিগো দি পল ও লিয়ান্দ্রো পারেদেসরা। হঠাৎ করে রাস্তার ঝুলন্ত তার এসে পড়ে তাদের সামনে। দ্রুতই মাথা নিচু করে দুর্ঘটনার হাত থেকে বাঁচেন তারা। তবে এক পাশে থাকা লিয়ান্দ্রো পারেদেস পুরোপুরি নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি। তার মাথায় তারের হালকা আঘাত লাগে। পড়ে যায় তার মাথায় থাকা টুপিটি। ছাদখোলা বাসে কিছুক্ষণ পর পর বিশ্বকাপ ট্রফি উঁচিয়ে ধরেন মেসিরা। আর উল্লাসে ফেটে পড়েন লাখো লাখো জনতা। ওই সময় ভোরের আধো অন্ধকারে জ্বলছিল হাজার হাজার মোবাইলের ফ্ল্যাশলাইট, উড়ছিল পতাকা; যেন অন্যরকম এক জগৎ। শুধু তাই নয়, ফোটানো হচ্ছিল আতশবাজি, চারদিক আলোকিত হচ্ছিল রঙিন আলোয়। মেসিদের নিয়ে যাওয়া হয় বুয়েন্স আয়ার্সের প্রাণকেন্দ্র আইকনিক ওবেলিসো স্মৃতিস্তম্ভে। যেখানে আগে থেকেই জড়ো হয়ে ছিলেন লাখো লাখো জনতা। বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার রাতে সেখানে রাজসিক সংবর্ধনায় সিক্ত হয়েছেন মেসি, মারিয়া, মার্টিনেজরা। তবে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি মাঝপথে নিরাপত্তাজনিত কারণে বন্ধ করে দেওয়া হয়। মরুর দেশ কাতারে গত ১৮ ডিসেম্বর ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থের’ ফাইনালে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে টাইব্রেকারে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় আর্জেন্টিনা। নির্ধারিত ও অতিরিক্ত মিলিয়ে দুদলের ১২০ মিনিটের খেলা ৩-৩ গোলে ড্র হলে, পেনাল্টি শুটআউটে নির্ধারণ হয় শিরোপার ভাগ্য। যেখানে ৪-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে ট্রফি নিজেদের করে নেয় আলবিসেলেস্তেরা।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply