Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » ট্টগ্রামকে থামিয়ে জয়ে ফিরল সোহানের রংপুর




রংপুর ও চট্টগ্রামের ম্যাচ। ছবি : বিসিবি টানা দুই ম্যাচে হেরে হতাশায় ডুবেছিল রংপুর রাইডার্স। এই হতাশা কাটল হোম অফ ক্রিকেটে। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে হারিয়ে জয়ে ফিরেছে নুরুল হাসান সোহানের রংপুর রাইডার্স। বিপিএলে আজ সোমবার (২৩ জানুয়ারি) দিনের প্রথম ম্যাচে চট্টগ্রামকে ৫৫ রানে হারিয়েছে রংপুর। টানা দুই হারের পর জয়ের মুখ দেখল রাইডার্সরা। অন্যদিকে হারের বৃত্তে আটকে থাকা চট্টগ্রাম দেখল আরেকটি হারের মুখ। এই নিয়ে সাত ম্যাচ খেলে পঞ্চম হারের মুখ দেখল আফিফ হোসেনের দল। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে স্কোরবোর্ডে ১৭৯ রান তুলেছে রংপুর রাইডার্স। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৫ রানের ইনিংস খেলেছেন রংপুরের পাকিস্তানি তারকা শোয়েব মালিক। জবাব দিতে নেমে ১২৪ রানে থেমেছে চট্টগ্রাম। নিজের কোটার পুরো ২০ ওভারও খেলতে পারেনি দলটি। নিয়মিত বিরতিতে ব্যাটারদের আসা-যাওয়ার মিছিলে টিকেছে মাত্র ১৬.৩ ওভার পর্যন্ত। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২১ বলে ৫২ রান করেছেন অধিনায়ক শুভাগত হোম। ১২ বলে ২৪ রান করেছেন জিয়াউর রহমান। টস জিতে রংপুরকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় চট্টগ্রাম। আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় রংপুর। ইনিংসের প্রথম ওভারেই হারায় ওপেনার মাহেদি হাসানকে। কট এন্ড বোল্ড করে রংপুরের ওপেনারকে নিজের শিকার বানান চট্টগ্রামের অধিনায়ক শুভাগত হোম। শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করেন নাঈম ও পারভেজ হোসেন। কিন্তু টিকেনি এই জুটিও। দলীয় ২৬ রানে পারভেজের বিদায়ে ভাঙে এই জুটি। তিনিও পড়েন শুভাগতের ফাঁদে। এরপর থিতু হয়ে বিদায় নেন নাঈম। ২৯ বলে ৩৪ রান করে সাজঘরে ফেরেন নাঈম। ৪৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় রংপুর। কিন্তু সেই বিপদ কাটান শোয়েব মালিক। আজমতউল্লাহকে সঙ্গে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে তিনি উপহার দেন ১০৫ রানের চমৎকার জুটি। এই জুটিতে ভর করেই লড়াইয়ের শক্ত পুঁজি পেল রংপুর। ৪৫ বলে শোয়েব করেন ৭৫ রান। তাঁর ইনিংসে ছিল সমান ৫টি করে বাউন্ডারি ও ছক্কা। অন্যদিকে আজমতউল্লাহ করেন ২৪ বলে ৪২ রানের ইনিংস। ৪ বাউন্ডারি আর এক ছক্কায় সাজানো ছিল তাঁর ইনিংস






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply