Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ইউক্রেনকে ৩ বিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের




রুশ হামলা ঠেকাতে ইউক্রেনে প্রায় তিন বিলিয়ন ডলারের মার্কিন ডলারের সামরিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানায়, শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন এই সামরিক সহায়তার প্যাকেজ ঘোষণা করেন। ইউক্রেনকে ৩ বিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের এ সময় অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেন, ইউক্রেনকে যে সামরিক সহায়তা দেয়া হবে তার মধ্যে রয়েছে, আর্টিলারি সিস্টেম, সাঁজোয়া যান, সারফেস টু এয়ার মিসাইল ও গোলাবারুদ। তিনি আরও জানান, এই সামরিক সহায়তা ইউক্রেনকে তার জনগণ, সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতা রক্ষায় সহায়তা করবে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের এই সামরিক সহায়তার ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি টুইটারে এক পোস্টে লিখেছেন, বিমানবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সহ সম্পূর্ণ নতুন অস্ত্রের জন্য ধন্যবাদ। এটি যুদ্ধক্ষেত্রে ইউক্রেনের সেনাবাহিনীকে শক্তিশালী করবে। ইউক্রেনের জন্য দুর্দান্ত ক্রিসমাস উপহার। আমেরিকান জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমরা বিজয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। এদিকে ইরানের ড্রোন কর্মসূচির ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ ইউক্রেন যুদ্ধে রাশিয়া ইরানের ড্রোন ব্যবহার করে হামলা চালাচ্ছে। শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছেন, ইরানি ইউএভি প্রস্তুতকারক কোডস অ্যাভিয়েশন ইন্ডাস্ট্রিজ, ইরানের অ্যারোস্পেস ইন্ডাস্ট্রিজ অরগানাইজেশন (এআইও) দেশটির ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নেতৃত্বে থাকা সাত ব্যক্তির ওপর এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। আরও পড়ুন: রাশিয়ার যুদ্ধবিরতি শুরু, গোলাবর্ষণ অব্যাহত ইউক্রেনের বিবৃতিতে ব্লিঙ্কেন বলেন, ইরান এখন রাশিয়ার শীর্ষ সামরিক সাহায্যকারী হয়ে উঠেছে। ইরানকে অবশ্যই ইউক্রেনে রাশিয়ার বিনা উস্কানিমূলক আগ্রাসনের জন্য তার সমর্থন দেয়া বন্ধ করতে হবে। তাদের এই কার্যকলাপ বন্ধে আমরা আমাদের সবটুকু সামর্থ্য কাজে লাগাবো। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, ইউক্রেনে ধ্বংসযজ্ঞ চালাতে ইরানি ড্রোন ব্যবহার করছে রাশিয়া। এতে বেসামরিক নাগরিকদের সর্বোচ্চ মূল্য দিতে হচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এর আগে ইরানি ড্রোনের দুটি মডেল "শাহেদ এবং মোহাজের-সিরিজ ইউএভি" উৎপাদন এবং স্থানান্তরের সঙ্গে জড়িত ইরানি সংস্থাগুলোকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। কিয়েভ এবং মস্কো উভয়ই যুদ্ধের সময় কখনও নজরদারির জন্য এবং কখনও কখনও মারাত্মক আক্রমণের জন্য ড্রোন ব্যবহার করেছে। এই সপ্তাহের শুরুর দিকে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি অভিযোগ করে বলেছেন, রাশিয়া ইউক্রেনকে "নিঃশেষ" করতে ইরানের তৈরি ড্রোনের ওপর নির্ভর করছে। ইরান এর আগে ইউক্রেন যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য রাশিয়াকে ড্রোন সরবরাহের কথা অস্বীকার করে। তবে নভেম্বরে, দেশটি নিশ্চিত করেছে তারা মস্কোকে "সীমিতসংখ্যক" ড্রোন দিয়েছে। ইরান বলেছে, ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেন আক্রমণের আগে ড্রোনগুলো রাশিয়ারকে সরবরাহ করা হয়েছিল।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply