Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

সাম্প্রতিক খবর


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

mujib

w

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » » ইসরাইলি সংবাদপত্রগুলোতে কেন প্রথম পৃষ্ঠাজুড়ে কালো রঙ




ইসরাইলে বিচার বিভাগের ক্ষমতা সংকুচিতকরণের প্রস্তাব আইনে পরিণত হওয়ার পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে। এই অবস্থায় দেশটির জনগণের পাশাপাশি সংবাদমাধ্যমও প্রতিবাদে যোগ দিয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুলাই) দেশটির বেশ কয়েকটি দৈনিক পত্রিকার প্রথম পাতাজুড়ে ছিল শুধু কালো রঙ। ‘বিতর্কিত’ এ আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীরা পত্রিকায় বিজ্ঞাপন ছেপে অভিনব এ প্রতিবাদ জানিয়েছে। প্রথম পৃষ্ঠা কালো রেখে অভিনব প্রতিবাদ জানায় আন্দোলনকারীরা। ছবি: জেরুজালেম পোস্ট প্ ইসরাইলি সংবাদমাধ্যম জেরুজালেম পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিচার বিভাগ সংস্কারের আইন পাসের প্রতিবাদে পত্রিকায় কালো প্রথম পাতা ছাপার দায়ভার গ্রহণ করেছে আন্দোলনকারীদের একটি গোষ্ঠী। ইসরাইলি নতুন উদ্যোক্তা, বিভিন্ন কোম্পানিতে বিনিয়োগকারী, প্রযুক্তি পণ্য উৎপন্নকারী প্রতিষ্ঠানের পরিচালকদের নিয়ে এ গোষ্ঠী গড়ে উঠেছে। কালো পৃষ্ঠার একদম নিচে ছোট হরফে লেখা ছিল একটি বাক্য- ‘ইসরাইলের গণতন্ত্রের জন্য একটি কালো দিন আজ।’ বিশেষ এই বিজ্ঞাপন ছাপানো ইসরাইলি পত্রিকাগুলো হলো- ইয়েদিও আহারোনোত, ক্যালক্যালিস্ত, ইসরাইলহায়োম এবং হারেৎজ। কালো রঙে প্রথম পাতা ছাপানোর বিষয়টি যে ‘বিজ্ঞাপন’ তা পত্রিকাগুলো উপরে লিখে দিয়েছে। কোনো কোনো পাঠক জানিয়েছেন, লেখাগুলো এত ছোট যে কী কারণে কালো রঙ করা হয়েছে তা বুঝতে বেগ পেতে হয়েছে। আরও পড়ুন: নাবলুসে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে নিহত ৩ প্রতিবাদের বিষয়ে টুইটারে গ্রুপটি মঙ্গলবার জানায়, ‘তারা আমাদের ধরে ফেলল! আমরা আমাদের লোগো লুকানোর অনেক চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু ২ নম্বর পৃষ্ঠায় ঠিকই তা ছাপা হয়েছে।’ এর আগে পার্লামেন্টে বিলটি নিয়ে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। টাইমস অব ইসরাইলের খবরে বলা হয়, সোমবার এই বিলের পক্ষে ৬৪টি ভোট পড়ে। বিরোধী জোট ভোট বর্জন করায় বিলের বিপক্ষে একটিও ভোট পড়েনি। বিক্ষোভকারীরা বলছেন, বিল পাস হলেই সুপ্রিম কোর্টের ক্ষমতা কমে আসবে। যে কোনো মূল্যে এই ভোট ঠেকাতে উঠে পড়ে লেগেছেন বিক্ষোভকারীরা। এদিন পার্লামেন্টসহ গুরুত্বপূর্ণ সরকারি সব কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন বিক্ষোভকারীরা। বিলের পক্ষে সাফাই গেয়ে ইসরাইলি বিচারমন্ত্রী ইয়ারেভ লেভিন বলেন, ‘এই সংশোধনী নিয়ে ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। ভোটারদের পছন্দকে সম্মান করতে সরকারের বিভিন্ন শাখার মধ্যে ক্ষমতার ভারসাম্য রক্ষায় এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।’






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply