Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

সাম্প্রতিক খবর


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

mujib

w

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ মারুফের বিধ্বংসী বোলিং, ভারতের বিপক্ষে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য বাংলাদেশের




ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ মিশন। প্রথমে ব্যাট করা ভারতের বিপক্ষে বল হাতে আগুন ঝরিয়েছেন পেসার মারুফ মৃধা। তবে বাকি বোলাররা খুব একটা প্রতিরোধ গড়তে না পারায় ভালো সংগ্রহই পেয়েছে মেন ইন ব্লুরা। একাই ৫ উইকেট নিয়েছেন মারুফ মৃধা। ছবি: গেটি ইমেজ শনিবার (২০ জানুয়ারি) ব্লুমফন্টেইনে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৫১ রান সংগ্রহ করেছে ভারত। ৪৩ রান খরচায় টাইগারদের পক্ষে একাই ৫ উইকেট নিয়েছেন মারুফ। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন মাহফুজুর রহমান রাবিব ও চৌধুরী মোহাম্মদ রিজওয়ান। এদিন টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশের যুবারা। শুরু থেকে নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে প্রতিপক্ষ শিবিরে চাপ তৈরি করেন দুই পেসার মারুফ ও ইকবাল হোসেন ইমন। সফলতা পেতেও খুব বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি তাদের। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে দলীয় ১৭ রানে মারুফের বলে কট বিহাইন্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন আর্শিন কুলকার্নি। ১৭ বলে ৭ রানে থামে তার ইনিংস। দুই ওভার পর উইকেটের দেখা প্রায় পেয়ে গিয়েছিলেন ইমনও। তবে আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তের বলি হয়ে উইকেট বঞ্চিত হন এ পেসার। আরও পড়ুন: বিপিএল থেকেই হবে বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দল ইনিংসের সপ্তম ওভারের ঘটনা। ইমনের শর্ট ডেলিভারিতে এজ হয়ে প্রথম স্লিপে ধরা পড়েন ওপেনার আদার্শ সিং। বাংলাদেশ দল উল্লাস করবে এমন সময় ফিল্ড আম্পায়ার ডোনোভান কোচ সংকেত দেখান নো বলের। ক্রিকবাজ তাদের লাইভ কমেন্ট্রিতে ঘটনার বর্ণনায় লেখে, আম্পায়ার ওভারস্টেপের জন্য নো বলের সংকেত দিলেও টেলিভিশন রিপ্লেতে দেখা যায় ইমনের বুট পপিং ক্রিজের অনেকটা ভেতরে ছিল। Adarsh Singh, seen celebrating his half-century here, stitched a century partnership with Uday Saharan, Bangladesh vs India, Under-19 World Cup, Bloemfontein, January 20, 2024 আদার্শ ও উদয়ের ১১৬ রানের জুটিতে লড়াই থেকে অনেকটা ছিটকে পড়ে বাংলাদেশ। ছবি: গেটি ইমেজ পরের ওভারে আক্রমণে এসে মুশির খানকে (৩) সাজঘরে ফিরিয়ে সে আক্ষেপ কিছুটা মেটান মারুফ। কিন্তু জীবন পাওয়া আদার্শ তৃতীয় উইকেটে উদয় শাহারানকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলেন। দুজন মিলে ১১৬ রানের জুটি গড়েন। ১৭ রানে জীবন পাওয়া আদার্শ শেষ পর্যন্ত ইনিংসের ৩২তম ওভারে গিয়ে রিজওয়ানের শিকার হন। ততক্ষণে ৯৬ বল খেলে ৬ চারের মারে ৭৬ রান তুলে নেন তিনি। আরেক প্রান্তে দাঁড়িয়ে ফিফটি তুলে নেয়া উদয়কে ফেরান রাব্বি। দলীয় ১৬৯ রানে ৯৪ বলে ৪ চারের মারে ৬৪ রান করে আউট হন উদয়। মাঝে বিরতিতে যাওয়া মারুফ আক্রমণে এসে আবারও নিজের ঝলক দেখান। ক্রিজের আধিপত্য নেয়া অরাভেলি অভানিশের পর সাজঘরে ফেরান প্রিয়ানশু মলিয়াকেও। দুজনের ব্যাট থেকেই আসে সমান ২৩ রান করে। এরপর মুরুগান অভিষেককে (৪) ফিরিয়ে ফাইফার পূর্ণ করে সিজদা দিয়ে সৃষ্টিকর্তার নিকট কৃতজ্ঞা প্রকাশ করেন মারুফ। টাইগার পেসারের দাপটের মাঝেও একপ্রান্ত আগলে রেখে ভারতের সংগ্রহ ২৫০ রান পার করে দেন শচীন দাস। সাত নম্বরে নামা এ ব্যাটার ২০ বলে ২৬ রান করে অপরাজিত থাকেন। আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের সেরা উইকেট শিকারি হতে চান মারুফ সবশেষ দেখায় দুবাইয়ে এশিয়া কাপের সেমিফাইনালে ভারতের এ দলটাকে হারিয়েছিল লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। বিশ্বকাপের মঞ্চেও তাই আত্মবিশ্বাসী মাহফুজুর রহমান রাব্বির দল। আশিকুর রহমান শিবলি, আরিফুল ইসলামরা ব্যাটিংয়ে নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিলে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্যটাও সহজ হয়ে যাবে বাংলাদেশের জন্য।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply