Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

সাম্প্রতিক খবর


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

mujib

w

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » তাইওয়ানের নতুন প্রেসিডেন্ট চীনবিরোধী উইলিয়াম লাই




চীনের হুমকিধমকি উপেক্ষা করে অবশেষে গণতন্ত্রের পক্ষে রায় দিয়েছে তাইওয়ানের জনগণ। দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে চীনবিরোধী বর্তমান ক্ষমতাসীন দল ডেমোক্রেটিক প্রগ্রেসিভ পার্টির (ডিপিপি) উইলিয়াম লাইকেই বেছে নিয়েছেন তারা। এর আগে লাইকে ‘ট্রাবলমেকার’ উল্লেখ করে তাইওয়ানের জনগণকে ভোট না দিতে সতর্ক করেছিল চীন। তাইওয়ানের নতুন প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম লাই। ছবি: সংগৃহীত কিন্তু চীনের এই সতর্কবার্তায় কান দেয়নি তাইপের মানুষ। গণতন্ত্রপন্থি উইলিয়াম লাইকে ভোট দিয়ে তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় রাখল বর্তমান ক্ষমতাসীন দল ডিপিপিকে। সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানায়, তাইওয়ানের ৯৮ শতাংশ কেন্দ্রের ফলাফলের মধ্যে উইলিয়াম লাই ৪০.২ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রক্ষণশীল কুয়োমিনতাং দলের হো ইয়ু হই পেয়েছেন ৩৩.৪ শতাংশ ভোট। হো পরাজয় মেনে নিয়েছেন এবং নতুন প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম লাইকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। এবারের নির্বাচনে তাইওয়ানের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট গণতন্ত্রপন্থি ডেমোক্রেটিক প্রোগ্রেসিভ পার্টির (ডিপিপি) সাই ইং ওয়েনের উত্তরসূরী নির্বাচিত হলেন। নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক প্রোগ্রেসিভ পার্টির (ডিপিপি) উইলিয়াম লাই-এর মূল প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন প্রধান বিরোধীদল রক্ষণশীল কুয়োমিনতাং পার্টির (কেএমটি) হো ইয়ু হই ও তাইওয়ান পিপলস পার্টির (টিপিপি) কো ওয়েন জে। আরও পড়ুন: বিশ্লেষণ / ভোটের আগেই কি কারচুপি শুরু হয়েছে পাকিস্তানে? সিএনএনের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১৯৯৬ সালে প্রথম গণতান্ত্রিক নির্বাচনের পর থেকে মূলত দুটি রাজনৈতিক দল ডিপিপি ও কেএমটি প্রতি চার বছর পরপর জয়ী হয়ে আসছে। প্রতি চারবছর অন্তর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সংবিধান অনুযায়ী, দুই মেয়াদের বেশি ক্ষমতায় থাকার নিয়ম নেই দেশটিতে। শনিবারের নির্বাচনে প্রায় ১৮ হাজার ভোটকেন্দ্র থেকে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন দেশটির জনগণ। ভোটার ছিলেন প্রায় ২ কোটি। স্থানীয় সময় শনিবার সকাল আটটায় ভোট শুরু হয়ে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। শুরু থেকেই তাইওয়ানের নির্বাচনে প্রভাব রাখার চেষ্টা করেছে চীন। কারণ তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট কে নির্বাচিত হবেন তার ওপর নির্ভর করছে তাইওয়ানের সঙ্গে বেইজিংয়ের সম্পর্ক গভীর হবে, না দূরত্ব বাড়বে। কারণ তাইওয়ানের নতুন প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম লাই চীনবিরোধী এবং তাইপের সার্বভৌমত্বের প্রতি অনুগত। অন্যদিকে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী কেএমটির হো চীনঘেঁষা হিসেবে পরিচিত। তাই নির্বাচনের আগে থেকেই উইলিয়াম লাইকে নিয়ে নানা অপপ্রচার চালিয়েছে বেইজিং।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply