Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

সাম্প্রতিক খবর


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

mujib

w

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যে চার শতাধিক বন্দি বিনিময়




রাশিয়া ও ইউক্রেন আরও চার শতাধিক যুদ্ধবন্দি বিনিময় করেছে। বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। রাশিয়া থেকে দুই শতাধিক ইউক্রেনীয় সেনাকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত সম্প্রতি ৬৫ জন ইউক্রেনীয় যুদ্ধবন্দিসহ ৭৩ জনকে নিয়ে ইউক্রেন সীমান্তে একটি রুশ সামরিক বিমান বিধ্বস্ত হয়। এতে ইউক্রেনের ৬৫ জন বন্দিই প্রাণ হারান বলে জানায় রুশ কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার পর এই প্রথম বন্দি বিনিময় করলো দু’দেশ। রুশ সামরিক বাহিনী বলেছে, বুধবার (৩১ জানুয়ারি) উভয় পক্ষ ১৯৫ জন করে সৈন্য ফিরিয়ে দিয়েছে। তবে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জানিয়েছেন, ২০৭ ইউক্রেনীয় সেনাকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। এর আগে, গত মাসের শেষ সপ্তাহে রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর ইউশিন আইএল-৭৬ বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। রাশিয়ার দাবি, বিমানটিতে ইউক্রেনের ৬৫ যুদ্ধবন্দি ছিলেন। তবে মস্কোর এই দাবি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে কিয়েভ। আরও পড়ুন: ৪৭৮ বন্দি বিনিময় করলো রাশিয়া ও ইউক্রেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বুধবার দাবি করেছেন, আইএল-৭৬ সামরিক পরিবহন বিমানটি আমেরিকান প্যাট্রিয়ট সিস্টেম ব্যবহার করে পশ্চিম বেলগরোদ অঞ্চলে ইউক্রেন ভূপাতিত করেছে। তবে নিজের এই দাবির সমর্থনে তিনি কোনো প্রমাণ দেননি। রাশিয়ান সামরিক বাহিনী আগে বলেছিল, বিমানটিতে কয়েক ডজন ইউক্রেনীয় সৈন্য ছিল। বন্দি বিনিময়ের জন্য তাদের ওই এলাকায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এছাড়া বিমানটিতে ছয় রাশিয়ান ক্রু সদস্য এবং তিনজন এসকর্টিং কর্মকর্তাও ছিলেন। দুর্ঘটনায় তারা সবাই প্রাণ হারান। বিবিসি বলছে, বিমান দুর্ঘটনার বিষয়ে রাশিয়া এখন পর্যন্ত তার দাবির পক্ষে কোনো দৃঢ় প্রমাণ দিতে পারেনি এবং অতীতে রুশ কর্মকর্তাদের মিথ্যা এবং ভুয়া তথ্য দেয়ার দীর্ঘ ও প্রমাণিত ইতিহাসও রয়েছে। আরও পড়ুন: ইউক্রেন সীমান্তে বিধ্বস্ত রুশ বিমানের আরোহী কারা কিয়েভ অবশ্য সরাসরি রাশিয়ার ওই বিবৃতি অস্বীকার করেনি। তবে বলেছে, এখনও কিছুই নিশ্চিত করা হয়নি। গত সপ্তাহে কিয়েভের সামরিক গোয়েন্দা সংস্থার একজন মুখপাত্র বিবিসিকে বলেছিলেন, বিধ্বস্ত হওয়া রুশ আইএল-৭৬ বিমানে যুদ্ধবন্দি থাকার সম্ভাবনা তিনি ‘বাদ দিচ্ছেন না’।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply