Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

সাম্প্রতিক খবর


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

mujib

w

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ক্লপ–গার্দিওলার ‘শেষ’ লড়াইয়ে কেউ জিতলেন না, আর্সেনালই শীর্ষে




প্রেক্ষাপট তো সবারই জানা। মৌসুম শেষে লিভারপুল ছাড়ছেন ইয়ুর্গেন ক্লপ। তাতে পেপ গার্দিওলার সঙ্গে ক্লপের যে দীর্ঘ দ্বৈরথ, সেটারও ইতি ঘটতে চলেছে। সে হিসেবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে দুজনের দল আজই শেষবার মুখোমুখি হলো। তবে লিগে শেষ দেখায় ক্লপ–গার্দিওলা কেউই জিতলেন না। অ্যানফিল্ডে ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে ১–১ গোলে ড্র করল লিভারপুল। প্রথমার্ধে জন স্টোনসের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল সিটি। বিরতির পরপরই পেনাল্টি থেকে ম্যাক অ্যালিস্টারের গোলে সমতায় ফেরে লিভারপুল। লিভারপুল–সিটি পয়েন্ট ভাগাভাগি করুক, নিশ্চয় সেই কামনায় এই মহারণ দেখতে বসেছিলেন আর্সেনাল সমর্থকেরা। কারণ, দুদলের কেউ জিতলেই গানারদের শীর্ষস্থান হারাতে হতো। শেষ পর্যন্ত লন্ডনের ক্লাবটির সমর্থকদের মনে আশাই পূরণ হলো। এ ম্যাচ ড্র হওয়ায় গোল পার্থক্যে এগিয়ে থেকে শীর্ষেই থাকল আর্সেনাল। সমতা ফেরানো গোলের পর ম্যাক অ্যালিস্টারের গর্জন। আজ অ্যানফিল্ডে সমতা ফেরানো গোলের পর ম্যাক অ্যালিস্টারের গর্জন। আজ অ্যানফিল্ডেএক্স গতকাল ব্রেন্টফোর্ডকে হারিয়ে শীর্ষ ওঠা আর্সেনালের পয়েন্ট ৬৪। আজকের ম্যাচের আগে এবারের লিগ মৌসুমে হারের পরিস্থিতি থেকে ঘুরিয়ে দাঁড়িয়ে সবচয়ে বেশি ২২ পয়েন্ট তুলে নিয়েছিল লিভারপুল। আজ ড্রয়ের পর তা বেড়ে হলো ২৩ আর মোট পয়েন্ট হলো আর্সেনালের সমান ৬৪। কিন্তু আর্সেনালের গোল ব্যবধান লিভারপুলের চেয়ে ৭টি বেশি। তাই মিকেল আরতেতার দলই আপাতত পয়েন্ট তালিকার চূড়ায় থাকছে। তিনে থাকা সিটির পয়েন্ট ৬৩। এবারের লিগ মৌসুমে প্রথম লড়াইয়েও ড্র করেছিল লিভারপুল–সিটি। গত নভেম্বরে ইতিহাদ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচের ফলও আজকের মতোই; ১–১! সেই ম্যাচেও প্রথমার্ধে পিছিয়ে পড়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে দাঁড়িয়েছিল অলরেডরা। তবে আজকের ম্যাচে যে পরিমাণ আক্রমণ–পাল্টা আক্রমণ হয়েছে, তাতে আরও একাধিক গোল প্রত্যাশিত ছিল। দুদল লক্ষ্যে শট নিয়েছে সমান ৬টি করে মোট ১২টি, গোলের সুযোগ তৈরি করেছে ২৯টি। আরও পড়ুন গার্দিওলা-ক্লপ, দ্বৈরথ ছাড়িয়েও যারা বন্ধু গার্দিওলা-ক্লপ, দ্বৈরথ ছাড়িয়েও যারা বন্ধু কিন্তু ম্যাচজুড়ে দুদলের ফরোয়ার্ডদের ফিনিশিংয়ে দুর্বলতা স্পষ্ট ফুটে উঠেছে। লিভারপুলের কলম্বিয়ান উইঙ্গার লুইস দিয়াজের ছিল দৃষ্টিকটু, আবার কিছু ক্ষেত্রে ভাগ্য সিটির সহায় হয়নি। ফিল ফোডেনের প্রচেষ্টা ক্রস বারে আর জেরেমি ডোকুর শট পোস্টে লেগে না ফিরলে অ্যানফিল্ড হয়তো স্তব্ধ হয়ে যেত। এতগুলো সুযোগ সৃষ্টির পরও ম্যাচে মাত্র দুটি গোল হওয়ায় ফুটবলপ্রেমীরা আক্ষেপ করতেই পারেন। লিভারপুল আজ যে একাদশ নিয়ে ম্যাচ শুরু করেছিল, সেটার গড় বয়স ছিল ২৫ বছর ১৩৩ দিন, যা গত ৬ বছরের মধ্যে লিগে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে তাদের সবচেয়ে কম বয়সী দল। ম্যাচ শেষে ক্লপ–গার্দিওলার আলিঙ্গন ম্যাচ শেষে ক্লপ–গার্দিওলার আলিঙ্গনএএফপি হ্যামস্ট্রিং চোট থেকে পুরোপুরি সেরে না ওঠায় এমন ম্যাচেও মোহাম্মদ সালাহকে নিয়ে ঝুঁকি নেননি ক্লপ। দলের প্রাণভোমরাকে বসিয়ে রেখেছিলেন তিনি। পরে সালাহকে নামিয়েছেন ম্যাচের ৬০ মিনিট দমিনিক সোবোলসলাইয়ের বদলি হিসেবে। মাঠে নামার পর থেকে বাকিটা সময় দারুণ কিছু সুযোগ সৃষ্টি করেন সালাহ। কিন্তু জয়সূচক গোলটা এনে দিতে পারেননি। আজ গোল মিসের পসরা সাজিয়ে বসা দিয়াজই প্রথমবার সিটির জালে বল পাঠিয়েছিলেন। ম্যাচের ১৯ মিনিটে অসাধারণ দলীয় বোঝাপড়ায় আক্রমণে ওঠে লিভারপুল। ম্যাক অ্যালিস্টার দারুণ পাস বাড়িয়েছিলেন দারউইন নুনিয়েজকে। বল নিয়ে কিছু দূর ছুটে বক্সে ঢোকার পর বাঁ পাশে থাকা দিয়াজকে বল দিয়েছিলেন। ম্যাচে দিয়াজ ওই একবারই ‘পারফেক্ট ফিনিশিং’ দিলেও নুনিয়েজের অফসাইডে থাকায় গোলটি বাতিল হয়ে যায়।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply