Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

সাম্প্রতিক খবর


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

mujib

w

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » আবার হ্যাটট্রিক ফারিহার, এবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে




আইসিসির পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে প্রথম এবং সব মিলিয়ে তৃতীয় বোলার হিসেবে আন্তর্জাতিক নারী টি-টোয়েন্টিতে দুটি হ্যাটট্রিক করলেন ফারিহা ইসলাম। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আজ মিরপুরে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচের শেষ ওভারে এলিস পেরি, সোফি মলিনু ও বেথ মুনিকে আউট করে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন বাংলাদেশের বাঁহাতি পেসার। এর আগে ২০২২ সালে মালয়েশিয়ার বিপক্ষে প্রথম হ্যাটট্রিক করেছিলেন তিনি। ফারিহা ছাড়া বাংলাদেশের হয়ে হ্যাটট্রিক আছে শুধু ফাহিমা খাতুনের। মেয়েদের আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ফারিহা ছাড়া দুটি করে হ্যাটট্রিক আছে উগান্ডার কনসিলেট আওয়েকো ও হংকংয়ের কা ইং চ্যানের। ফারিহার হ্যাটট্রিকের পরও অস্ট্রেলিয়া তুলেছে ২০ ওভারে ১৬১ রান। তবে সফরকারীদের এ রানের মধ্যে আটকে রাখতে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হয়েছে বাংলাদেশকে। প্রথম ১১ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ছিল ১ উইকেটে ১০৫ রান। ফারিহার হ্যাটট্রিকের উল্লাস ফারিহার হ্যাটট্রিকের উল্লাসপ্রথম আলো ব্যাটিং অর্ডারে ‘প্রমোশন’ পেয়ে ওপেনিংয়ে আসা গ্রেস হ্যারিসের ৩৪ বলে ৪৭ ও তিনে আসা জর্জিয়া ওয়ারেহামের ৩০ বলে ৫৭ রানের ইনিংস এবং দুজনের ৫৪ বলে ৯১ রানের জুটিতে অস্ট্রেলিয়া এগোচ্ছিল বিশাল সংগ্রহের পথে। সেখান থেকে ফাহিমা ও নাহিদা আক্তারের সঙ্গে ফারিহার বোলিংয়ে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। ফারিহা বোলিং শেষ করেন ১৯ রানে ৪ উইকেট নিয়ে, ফাহিমা ও নাহিদা নেন ২টি করে উইকেট। টসে জিতে ব্যাটিং নিয়ে অস্ট্রেলিয়া ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে ব্যাপক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছে। হ্যারিসের সঙ্গে ওপেন করতে আসেন ফিবি লিচফিল্ড। আট বছর আগে দুবার ওপেন করেছিলেন হ্যারিস (রান করতে পারেননি কোনো), লিচফিল্ড ক্যারিয়ারে ওপেন করেছিলেন মাত্র একবার। তাঁদের ওপেনিং জুটি অবশ্য টেকেনি বেশিক্ষণ। ফারিহার বলে কাভারে লিচফিল্ড ক্যাচ তুললে সেটি ভাঙে ১৫ রানে। ইনিংসে ৪ উইকেট নেন ফারিহা ইনিংসে ৪ উইকেট নেন ফারিহাপ্রথম আলো মিরপুরে এরপর চলে হ্যারিস ও ওয়ারেহামের শো। প্রথম ৬ ওভারে উঠেছিল ৪০ রান, এরপর থেকে গতি বাড়ে আরও। স্বর্ণা আক্তারের করা অষ্টম ওভারে ওঠে ২০ রান, ৭-১০ ওভারের মধ্যে ওঠে ৫৪ রান। এর আগে কখনোই সাতের ওপরে না খেলা ওয়ারেহাম ফিফটি করেন মাত্র ২৬ বলেই। বাংলাদেশের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ১৮৯ রানের স্কোর তো বটেই, ২০০-ও সম্ভব মনে হচ্ছিল তখন। তবে ১২তম ওভারে নাহিদাকে তুলে মারতে গিয়ে ডিপ মিডউইকেটে ওয়ারেহাম ধরা পড়ার পর থেকেই ছন্দপতন হয় অস্ট্রেলিয়ার। পরের ওভারে ফাহিমা করেন জোড়া আঘাত—চারে আসা অ্যাশলেই গার্ডনারের পর ফেরেন হ্যারিস।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply