sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » ফিক্সিং ইস্যুতে আশরাফুলকে নিয়ে হার্শার আক্ষেপ




স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগে উমর আকমলকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে তিন বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। নিষেধাজ্ঞার পর উইকেটকিপার এই ব্যাটসম্যানকে নিয়ে কড়া সমালোচনা হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রাগ ঝেড়েছেন দেশটির সাবেক তারকা রমিজ রাজা। তবে জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার হার্শা ভোগলে কড়া কথা শোনাননি; বরং আকমলকে নিয়ে আক্ষেপ হচ্ছে তাঁর। সেইসঙ্গে বাংলাদেশি তারকা মোহাম্মদ আশরাফুলকেও স্মরণ করলেন এই ধারাভাষ্যকার। আকমলের মতো ২০১৩ সালে ফিক্সিংয়ের অপরাধে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন আশরাফুল। নিষেধাজ্ঞায় ক্যারিয়ারের অনেক সোনালি সময় হারিয়েছেন তিনি। পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছে তাঁর। কিন্তু ফিটনেস-বয়স সবকিছু মিলিয়ে ফেরা হয়নি জাতীয় দলে। অথচ বাংলাদেশি এই তারকার হাত ধরে কত সফলতাই না এসেছে। যদি ফিক্সিংয়ের অপরাধে না জড়াতেন, তাহলে নিজেকে আরো উচ্চতায় নিয়ে যেতে পারতেন বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক। আশরাফুলের মতো দশা হয়েছে আকমলেরও। হার্শার মতে, আশরাফুল ও আকমল দুজনই অসম্ভব প্রতিভাবান ক্রিকেটার। টুইটারে তাঁদের নিয়ে আক্ষেপ করে হার্শা লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে দুজন অসামান্য প্রতিভাবান দেখলাম। মোহাম্মদ আশরাফুল ও উমর আকমল। তুমি নিজের প্রতিভাকে কতটা কাজে লাগাচ্ছ, সেটির ওপর নির্ভর করে তুমি কত দূর যাবে। শুধু প্রতিভা থাকলেই হয় না।' আকমলের বিষয়টি নিয়ে বেশ আলোচনা চলছে ক্রিকেট মহলে। আকমল নির্বোধ বলে খোঁচা দিয়েছেন পাকিস্তানেরই সাবেক তারকা ক্রিকেটার রমিজ রাজা। তাঁর মতে, 'হচ্ছে এদের একমাত্র জায়গা। টুইটারে রমিজ লিখেছেন, 'আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বোধের তালিকায় নাম লেখাল উমর আকমল। তিন বছর নিষিদ্ধ। প্রতিভার কী অপচয়। পাকিস্তানে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের বিরুদ্ধে আইন পাসের উপযুক্ত সময় এখনই। জেলই হচ্ছে এদের একমাত্র জায়গা।' পিসিবির আইনি পরামর্শদাতা তাফাজ্জল রিজভিও এসবের জন্য আরো বড় শাস্তির পক্ষে কথা বলেছেন। তিনি বলেন, ‘রিপোর্ট না করায় তিন বছরের এই শাস্তি ঠিকই আছে। পিসিবি যদিও আরো কঠিন শাস্তি চাইছিল। এসব ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানোর সময় এখনই। কারণ এটা পরিষ্কার যে ভুল থেকে যতটা শেখা উচিত, খেলোয়াড়রা ততটা শিখছে না। আকমলের ক্ষেত্রে আইনি দিক থেকে বলতে পারি, আমি খুবই সন্তুষ্ট যে এই নিষেধাজ্ঞা যৌক্তিক, ন্যায্য ও যথার্থ।’






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply