sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » চীনে ভয়াবহ বন্যা, পানিবন্দি সাড়ে ৪ কোটিরও বেশি




চীনে ভয়াবহ বন্যা, পানিবন্দি সাড়ে ৪ কোটিরও বেশি

চীনের দক্ষিণ এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। স্মরণকালের ভয়াবহ এ বন্যায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন সাড়ে ৪ কোটিরও বেশি মানুষ। সবচেয়ে বেশি অবনতি হয়েছে জিয়াংশি প্রদেশে। সেখানকার কয়েকটি অঞ্চল থেকে নতুন করে আরও প্রায় ১৫ হাজার বাসিন্দাকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় মোতায়েন করা হয়েছে প্রায় ৪ হাজার সেনা সদস্য।

করোনার ভয়াল থাবা থেকে মুক্তি মিলতে না মিলতেই স্মরণকালের ভয়াবহতম বন্যার মুখোমুখি চীনের দক্ষিণ এবং দক্ষিণ পূর্বাঞ্চল। বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় জিয়াংশি প্রদেশ। পরিস্থিতির অবনিত হয়েছে হুবেই প্রদেশেও। সেখানকার বেশিরভাগ নদ-নদীর পানিই প্রবাহিত হচ্ছে তিন থেকে সাড়ে মিটার ওপর দিয়ে। এতে, তলিয়ে গেছে বেশিরভাগ অঞ্চলের ঘরবাড়ি ও রাস্তাঘাট।

মঙ্গলবারও জিয়াংশি প্রদেশের কয়েকটি অঞ্চল থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে প্রায় ১৫ হাজার বাসিন্দাকে। উদ্ধারের অপেক্ষায় রয়েছে আরও কয়েক হাজার। বন্যার্তদের উদ্ধারে মোতায়েন করা হয়েছে প্রায় ৪ হাজার সেনা সদস্য। মঙ্গলবার, এসব সেনা সদস্যকে বন্যা কবলিত এলাকাগুলোতে প্রয়োজনীয় খাদ্য ও অন্যান্য সরকারি ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দিতে দেখা গেছে।

একজন বলেন, এ পর্যন্ত আমরা অন্তত ১০টি গ্রামের বাসিন্দাদের সরিয়ে নিতে সক্ষম হয়েছি। সরকারি ত্রাণ আমাদের হাতে এসে পৌঁছানো মাত্র আমরা সেগুলো বন্যা কবলিতদের মধ্যে সরবরাহ করছি।



আরেকজন বলেন, একই অবস্থা হুবেইতেও। সেখানকার প্রায় সব নদ-নদীর পানি বেড়েছে রেকর্ড পরিমাণ। মঙ্গলবারও বিপদসীমার অন্তত ৩ মিটার ওপর দিয়ে এসব নদীর পানি প্রবাহিত হওয়ায় ক্রমশ অবনিত হচ্ছে বন্যা পরিস্থিতির।

আরো একজন বলেন, আমরা আপাতত বয়স্ক এবং শিশুদেরকে অগ্রধিকার ভিত্তিতে সরিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছি। এছাড়াও, অসুস্থ ব্যক্তিদেরকেও দ্রুত উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছি আমরা।

পুরো দক্ষিণাঞ্চলজুড়ে মৌসুমী বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় সামনের দিনগুলিতে বন্যা পরিস্থিতি আরও অবনতির আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply