sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » শোচনীয় অবস্থায় কারাতে ফেডারেশন




শোচনীয় অবস্থায় কারাতে ফেডারেশন

বড় বড় ফেডারেশনকে পেছনে ফেলে এসএ গেমসে তিনটি স্বর্ণ পদক জিতেছিল বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন। কিন্তু করোনাকালে ফেডারেশনটির অবস্থা শোচনীয়। মাঠে খেলা না থাকায় খেলোয়াড় ও কোচরা সংসার চালাতেই হিমশিম খাচ্ছে। আন্তর্জাতিক সূচিতে কোনো খেলা না থাকায় হতাশ আল-আমিনরা। শিগগিরই শঙ্কা কাটার কোনো পথ দেখছেন না ফেডারেশনটির সহ সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন সেন্টু। 

গেল এসএ গেমসে চোখ রাখলে নিঃসন্দেহে নজর কাড়বে কারাতে ডিসিপ্লিনটি। শ্যুটিং, সাঁতারের মত খেলা গুলোতে কাড়ি কাড়ি টাকা ঢেলেও যেখানে আসেনি কোনো স্বর্ণপদক। সেখানে অনেকটা অবহেলিত কারাতে দেশকে এনে দিয়েছিল ৩টি স্বর্ণপদক। অনেকটা চোখে আঙ্গুল দিয়ে প্রিয়া, হুমায়রা ও আল-আমিনরা দেখিয়ে দিয়েছিল তারাও পারে। এত সব অর্জনের পরও কেনো যেনো কর্তৃপক্ষের মন পাচ্ছে না ফেডারেশনটি। করোনা পরিস্থিতিতে তো আরো অসহায় খেলোয়াড়রা। ফেডারেশনের খেলোয়াড়রা তো বটেই, আর্থিক অনটনে থাকা কোচদেরও এখন বিকল্প পেশায় যাওয়ার যোগাড়।

জাতীয় দলের কোচ মোজাম্মেল হক মিলন বলেন, 'আমাদের কোন আয় রোজগার নেই বর্তমানে। যেহেতু আমাদের কারাতের ক্লাসগুলো বন্ধ সে জন্য খুব সমস্যায় আছি। কাউকে বলতেও পারি না সমস্যার কথা।' 

ক্যালেন্ডারের পাতা ওল্টায় কিন্তু বদলায় না কারাতে খেলোয়াড়দের ভাগ্য। করোনাকালে ২০ অ্যাথলিটকে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে ১০ হাজার করে এককালীন টাকা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু পরিমিত অর্থটাও যে মামুলি। সামনে কবে আবার খেলা হবে তা জানে না কেউ। যা ভাবাচ্ছে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদককে।

ফেডারেশনের সহ-সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন সেন্টু জানান, 'ওয়ার্ল্ড কারাতের যে খেলাগুলো ছিলো সেগুলো স্থগিত হয়ে গেছে। পরিস্থিতি ভালো হলে হয়তো সব চালু হবে। যার যার অবস্থায় থেকে ব্যক্তিগত পর্যায় থেকে ক্যাম্প চালিয়ে যাবে সবাই।'

তবে কারো মুখ পানে চেয়ে নেই অ্যাথলিটরা। নিজেদের সাধ্যমত ফিট থাকতে পরিশ্রম করছেন। ম্যাটে নিয়ম করে অনুশীলন থেমে নেই এই করোনাকালেও। বেশির ভাগ কারাতে খেলোয়াড়ই অবস্থান করছেন নিজ নিজ বাড়িতে। তবে আন্তর্জাতিক সূচিতে কোনো খেলা না থাকায় হতাশ তারা।

স্বর্ণজয়ী কারাতে খেলোয়াড় আল-আমিন বলেন, 'ফেডারেশন পরামর্শ দিয়েছে অনুশীলন চালিয়ে যেতে। কবে খেলা শুরু হবে তা জানি না। আমাদের নিজস্ব কোন অনুশীলন ব্যবস্থা নেই থাকলে হয়তো আরো ভালো করতো কারাতে খেলোয়াড়রা।; 

করোনাকালে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকায় কিছু অনলাইন কারাতে চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজন করার দাবি অ্যাথলিটদের। 






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply