sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » কালোবুক বাবুই (ইংরেজি: Black-breasted Weaver)[42]




মহসিন আলী আঙ্গুর//

কালোবুক বাবুই (ইংরেজি: Black-breasted Weaver) বাংলাদেশের একটি দুর্লভ আবাসিক পাখি। পাখিটি বাংলা বাবুই বা বুক-কালো বাউই নামেও পরিচিত । পাখিটির বৈজ্ঞানিক নাম Ploceous benghalensis (প্লোসিয়াস ব্যাঙ্গালেনসিস)।[২] বর্ণনা কালোবুক বাবুই নলখাগড়ার বন ও লম্বা ঘাসবনের বাসিন্দা। মূলত সিলেট, ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগে দেখা মেলে। তবে বেশ দুর্লভ। ঘাসবীচি, শস্যদানা, পোকামাকড় ইত্যাদি খায়। মৃদু স্বরে ‘চিট-চিট-চিট-চিট’ ডাকে। এরা লম্বায় ১৪-১৫ সেন্টিমিটার। ওজন ১৮-২২ গ্রাম। পুরুষ ও স্ত্রীর দেহের রঙে বেশ পার্থক্য আছে। প্রজনন মৌসুমে পুরুষের দেহে রঙের যথেষ্ট পরিবর্তন হয়। পুরুষের মাথার চাঁদি সোনালি-হলুদ হয়ে যায়। কান-ঢাকনি ও গাল হালকা বাদামি থেকে সাদা। ঘাড় ধূসর-কালো ও গলা সাদা। বুকে চওড়া কালো ফিতা। পেট ফিকে সাদা, যাতে হালকা বাদামি বা হলদের ছোঁয়া। পিঠে কালচে লম্বালম্বি দাগ। প্রজননকালের স্ত্রী অন্য সময়ের চেয়ে কিছুটা উজ্জ্বল, অনেকটা শীতের পুরুষের মতো। স্ত্রী ও প্রজননহীন পুরুষ মাথা ও ঘাড়ের ওপর কালচে ডোরা, যার মাঝখানে হলুদ। দেহের ওপরটায় লম্বালম্বি হলুদ ও কালচে দাগ। ভ্রু ও গলা হলুদ, কান-ঢাকনি বাদামি ও পেট পীতাভ। বুকের ওপরের কালো ফিতা অসম্পূর্ণ। স্ত্রী-পুরুষনির্বিশেষে চোখ হালকা বাদামি, ঠোঁট কালচে। পা, আঙুল ও নখ হালকা গোলাপি। অপ্রাপ্তবয়স্ক পাখি দেখতে হুবহু মায়ের মতো, তবে দেহের নিচটা ফিকে। মে থেকে সেপ্টেম্বর প্রজননকালে নদীর তীরে বা জলার ধারে নলখাগড়া বা উঁচু ঘাসে ২০-২৫ সেন্টিমিটার লম্বা কিছুটা ডিম্বাকার বাসা বানায়, যা বাবুই পাখির বাসার তুলনায় ছোট। একই জায়গায় সচরাচর দুই থেকে পাঁচটি বাসার কলোনি দেখা যায়। পুরুষ পাখি বাসা বানায়, অর্ধসমাপ্ত বাসা স্ত্রী পরখ করে। পছন্দ হলে জোড় বাঁধে। স্ত্রী দুই থেকে চারটি সাদা ডিম পাড়ে। প্রায় দুই সপ্তাহে ডিম ফোটে। বাচ্চারা এক মাসের মধ্যে উড়তে শেখে।[২] তথ্যসূত্র "Ploceus benghalensis"। বিপদগ্রস্ত প্রজাতির আইইউসিএন লাল তালিকা। সংস্করণ 2013.2। প্রকৃতি সংরক্ষণের জন্য আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন। ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৩। পদ্মাপারের কালোবুক বাবুই - দৈনিক প্রথম আলো (অক্টোবর ২৭, ২০১৫)






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply