sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » সেতু ভবন ভাঙার কথা বললেন মেয়র আতিক




ঢাকার বিষফোঁড়া হয়ে দাঁড়িয়েছে মহাখালী সেতু ভবন এমন মন্তব্য করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘নগরে বাস চলাচল নিয়ে নিয়মিত মিটিং হয়। সেই মিটিংয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের উপস্থিত ছিলেন। মিটিংয়ে বলেছিলাম, মহাখালী কেন সেতু ভবন করা হলো? সেতু ভবনটি কে করলো? এই ভবন নির্মাণ করে ঢাকা শহরের সবচেয়ে বড় ক্ষতি করা হয়েছে। ভবিষ্যতে সেতু ভবনটি মহাখালী থেকে স্থানান্তরিত করতেই হবে। এটি বাস্তবতা, এসব বাস্তবতা বলতেই হবে’। আজ মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) রাজধানীতে প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি) এ নগর উন্নয়ন সাংবাদিক ফোরাম, বাংলাদেশে’র ‘গণপরিবহন পরিকল্পনা ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক রিপোর্টিং প্রশিক্ষণ’ সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ আয়োজনে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, মহাখালী চেয়ারম্যান বাড়ির সামনের রাস্তার পাশে বড় বড় গাছ ছিল। সেই গাছ কেটে ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। ভবন করার জন্য ঢাকায় অনেক জমি রয়েছে, রাস্তার পাশে অপরিকল্পিতভাবে একটি ভবনও নির্মাণ করতে দেওয়া যাবে না। প্রতিবন্ধকতার মধ্যেও নগরের সমস্যাগুলো তুলে ধরতে হবে। ডিএনসিসির মেয়র আরও বলেন, নগরে যানবাহন চলাচলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) রুট পারমিট দেয়। রুট পারমিট দেওয়ার ক্ষেত্রে সংস্থাটি সিটি করপোরেশনের সঙ্গে সমন্বয় করে না। বিআরটিএ বাস, ট্রাক থেকে রেজিস্ট্রেশন ফি নেয়। রেজিস্ট্রেশন ফি’র একটি অংশ সিটি করপোরেশনকে দিতে হবে। কারণ সিটি করপোরেশনের রাস্তাগুলো মেরামতের জন্য বিআরটিএ কোনো ধরনের ফি দেয় না। বিআরটিএ গাড়ির রেজিস্ট্রেশন ফি’র একটি অংশ সিটি করপোরেশনকে না দিলে, গাড়ি চালকদের কাছ থেকে রাস্তা মেরামতের জন্য ফি আদায় করা হবে। এটা হচ্ছে বাস্তবতা। গাড়ির মালিকরা নগরে গাড়ি চালায় আর ফি দেয় বিআরটিএ’কে। সিটি করপোরেশনের রাস্তার ওপরে গাড়ি চালালে রাস্তা নষ্ট হয়ে যায়। সেই রাস্তা মেরামতের জন্য নিয়মিত সরকারের কাছে চিঠি লেখতে হয়। সরকার টাকা দিলে রাস্তা করবো, এটা হতে পারে না। নগরি গড়তে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply