sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » প্রচন্ড তাপদাহ ও শ্রমিক সংকট এর মধ্য দিয়েই চলছে মুজিবনগরের কৃষকের ধান কাটা শুরু




মুজিবনগরে ধান কাটা শ্রমিক সংকট, শ্রমিকের উচ্চমূল্য প্রচন্ড তাপদাহ আবার প্রাকৃতিক দূর্যোগ বিশেষ করে ঝড় বৃষ্টি এর ভয় এই আশা-নিরাশার মধ্য দিয়েই উপজেলার কৃষকরা তাদের পাকা আধাপাকা বোরো ধান কাটা বাঁধা ও মাড়ায় করে ঘরে তোলার ব্যাস্ততায় কাটছে তাদের দিন। দীর্ঘ দিন বৃষ্টি না হওয়ায় প্রচন্ড তাপদাহে পুড়ছে মুজিবনগর উপজেলা তাপ মাত্রা প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ ডিগ্রী মধ্য উঠা নামা করছে মাঠে টিকে থাকা দায় তবুও খুব ভোর থেকে কৃষি শ্রমিকরা ধান গোছানোর কাজ শুরুে করে বেলা ১২ টার আগেই কাজ শেষ করে ছায়ায় আশ্রয় নেই।এভাবেই চলছে এবারের বরো ধান ঘরে তোলার সংগ্রাম। এই বরো মৌসুমে সরকারী প্রণোদনা কৃষি অফিসের সহযোগীতা, আধুনিক প্রযুক্তি ও উচ্চফলনশীল বরোধান চাষের কারনে চলতি বছরে উপজেলায় ধানের বাম্পার ফলনের আশা চাষীদের। উপজেলার মোট জমির প্রায় ৪০% জমিতে বরো ধান চাষ হয়। মুজিবনগর কৃষি বিভাগের তথ্য মতে উপজেলায় মোট চাষ যোগ্য জমির পরিমান ৮৮০০ হেক্টর এর মধ্যে চলতি বরো মৌসুমে উপজেলার ৩ হাজার ৩ শত ৩০ হেক্টর জমিতে বরো আবাদ হয়েছে এবং এবারে ১৯ হাজার ৯ শত ৮০ মেট্রিক টন ধান উৎপাদন হবে বলে আশা করছে কৃষি অফিস। চলতি মৌসুমে উপজেলায় উচ্চফলনশীল জাত ব্রী ধান ৮৪, ব্রী ধান ৮৯ ব্রী ধান ৮১ ব্রী ধান ৫৮ ও বি আর ২৮ ধানের চাষ চাষ হয়েছে তবে উপজেলায় চলতি মৌসুমে সবথেকে উচ্চফলনশীল ব্রী ধান ৫৮ জাতের চাষ বেশি হয়েছে। কিন্তু কিছুদিন আগে দেশের অধিকাংশ এলাকার উপর দিয়ে ৩৫ ডিগ্রী তাপমাত্রার উপরে গরম ঝড় হাওয়া বয়ে যায় এই প্রাকৃতিক দূর্যোগ হিট ইনজুরির কারনে অনেক জেলায় ধানে শীষ শুকিয়ে গেলেও মুজিবনগর উপজেলায় ক্ষতির পরিমান কম মাত্র আধা হেক্টর জমির ধান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে জানান উপজেলা কৃষি অফিস চাষিরা অধিক লাভের আশায় এবং বাম্পারফলনের লক্ষ্যে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে বেশি জমিতে বোরো ধানের চাষ করেছিল।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply