sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » আমেরিকায় চিকিৎসকসহ ৫ জনকে হত্যার পর সাবেক খেলোয়াড়ের আত্মহত্যা




আমেরিকার দক্ষিণ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যের খ্যাতনামা একজন চিকিৎসক ও তাঁর স্ত্রী এবং তাঁদের দুই নাতি-নাতনিসহ পাঁচজনকে গুলি করে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন দেশটির জাতীয় ফুটবল লিগের (এনএফএল) সাবেক খেলোয়াড় ফিলিপ অ্যাডামস (৩২)। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন কাগজপত্রবিহীন অবৈধ অস্ত্র ঠেকাতে নতুন নির্বাহী আদেশে সই করার পরপরই এ ঘটনা ঘটল। মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএন জানিয়েছে, স্থানীয় সময় বুধবার বিকেল পৌনে ৫টায় সাউথ ক্যারোলাইনার ইয়র্ক কাউন্টির রক হিল শহরের মার্শাল রোডের একটি বাড়িতে গুলিবর্ষণের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। বাড়িটির ভেতরে গিয়ে ডা. রবার্ট লেসলি (৭০), তাঁর স্ত্রী বারবারা লেসলি (৬৯), তাদের নাতি আডাহ লেসলি (৯), নাতনি নোয়াহ লেসলি (৫) এবং পরিবারের কর্মী জেমস লেউয়িসের মৃতদেহ দেখতে পান পুলিশ কর্মকর্তারা। স্থানীয়ভাবে অত্যন্ত পরিচিত চিকিৎসক রবার্ট লেসলিকে হত্যার এমন হৃদয়বিদারক ঘটনায় সাউথ ক্যারোলাইনাজুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। জো বাইডেন আমেরিকার গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় লীগে একাধিক দলের হয়ে খেলা ফিলিপ অ্যাডামস কেনইবা চিকিৎসক দম্পতিকে হত্যা করতে যাবেন, সে সম্পর্কে কোনো তথ্য জানা সম্ভব হয়নি। ইয়র্ক কাউন্টি পুলিশের প্রধান কেভিন টলসনও সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা এখনও কিছুই বুঝে উঠতে পারছি না।’ আমেরিকায় সম্প্রতি বন্দুক হামলার ঘটনা উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হচ্ছে। আর তাই এসব ঘটনা নিয়ন্ত্রণে নতুন নির্বাহী আদেশ জারি করছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এই আদেশের মাধ্যমে নির্দিষ্ট কিছু বন্দুক বা অস্ত্রের ক্ষেত্রে নতুন নিয়মকানুন জারি, অস্ত্র ব্যবহারে ইচ্ছুক ব্যক্তির অতীত কর্মকাণ্ড যাচাই এবং সহিংসতা প্রতিরোধে স্থানীয় সংস্থাগুলোকে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা হবে। তবে, এ নির্বাহী আদেশ জারির পরপরই যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের ব্রায়ান শহরে বন্দুকধারীর গুলিতে একজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ছয়জন। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর।#






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply