Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » ট্যাংক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল ভারত




শত্রুকে তাক লাগিয়ে দিতে দেশীয় প্রযুক্তিতে ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী ক্ষোপণান্ত্র তৈরির দাবি করেছে ভারত। বুধবার (২১ জুলাই) এই ক্ষেপণাস্ত্রটির সফল পরীক্ষা চালানো হয় বলেও খবর দিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম। ট্যাংক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল ভারত আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (ডিআরডিও) ট্যাংক বিধ্বংসী এই ক্ষেপণাস্ত্রটি তৈরি করেছে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই শক্রুর ট্যাংক ধ্বংস করে দিতে পারে ক্ষেপণাস্ত্রটি। এই ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র ভারতীয় বাহিনীর অস্ত্রভাণ্ডারকে আরও শক্তিশালী করল বলেও প্রতিবেদনে জানানো হয়। ডিআরডিও’র বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, ক্ষেপণাস্ত্রটি খুবই হালকা ও সহজে বহনযোগ্য। শত্রুকে সহজে চিহ্নিত করতে এর সঙ্গে ইনফ্রারেড লাগানো রয়েছে। এটি পরীক্ষার সময় নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুকে চোখের নিমেষে ধ্বংস করে দিয়েছে। এক বছর ধরে লাদাখে ভারত-চিন সীমান্তে যে উত্তেজনা বিরাজ করছে, সেই পরিস্থিতিতে দেশীয় প্রযুক্তির ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা ভারতীয় সেনার জন্য একটা বড় সুখবর বলে মনে করা হচ্ছে। ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী এই ক্ষেপণাস্ত্রটির নাম দেওয়া হয়েছে হেলিনা। এর আগে, গত ফেব্রুয়ারিতে দেশীয় প্রযুক্তির আরও একটি ক্ষেপণাস্ত্র ভারতীয় সেনাবাহিনীকে সরবরাহ করেছিল ডিআরডিও। প্রসঙ্গত, দীর্ঘ সময় ধরে ভারতের সঙ্গে চীনের আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে নানা বিষয়ে বিরোধ লেগেই রয়েছে। গত বছর পূর্ব লাদাখে দু’দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ হওয়ার পর পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়ে যায় যে, একাধিক চীনা সংস্থার ওপর নিষেধাজ্ঞাও জারি করার পাশাপাশি ভারতের জনগণকে চীনা সরঞ্জাম বয়কট করার কথা বলা হয়। এই কারণেই গত বছর চীনা মোবাইল প্রস্তুতকারী সংস্থার সঙ্গে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) স্পনসরশিপের ৪৪০ কোটি রুপি বার্ষিক চুক্তিও স্থগিত রেখেছিল ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ড (বিসিসিআই)। যদিও এই বছর আবার আইপিএলের স্পনসর হিসেবে ফিরে এসেছে সংস্থাটি।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply