Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » বিদায়ী মেরকেলের সঙ্গে যে কথা হলো এরদোয়ানের




তুরস্কের সঙ্গে সম্পর্ক অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার করেছেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। জার্মানির সঙ্গে তুরস্কের সম্পর্কে সহযোগিতা ও সমালোচনা দুটোই আছে। ইউরোপের প্রভাবশালী দেশটির পরবর্তী সরকারও তা অব্যাহত রাখবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন। ইস্তানবুলে বিদায়ী সফরে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের সঙ্গে বৈঠকের পর মেরকেল বলেন, আমি সবসময় বলে আসছি, বহু বছর ধরে দুদেশের মধ্যে ভালো সহযোগিতা রয়েছে। এরদোয়ানের সঙ্গে আমার কাজ ছিল ইতিবাচক। ডয়চে ভেলের খবরে বলা হয়েছে, দুই নেতারে মধ্যে আলোচনায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে আংকারার শরণার্থী চুক্তি নিয়ে আলোকপাত করা হয়েছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে জার্মান চ্যান্সেলর বলেন, মানবাধিকার ও ব্যক্তি স্বাধীনতার ইস্যুতে আমি তুরস্কের সমালোচনা করেছি। আমরা সমাধান চেয়েছি। আমাদের মধ্যে মতপার্থক্য থাকতেই পারে, তবে পরস্পরের ওপর আমরা নির্ভরশীল ছিলাম। এরদোগান বলেন, মেরকেল সবসময়ই যৌক্তিক ও সমাধানভিত্তিক মনোভাব পোষণ করতেন। দুদেশের মধ্যে সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক অব্যাহত রাখার কথা জানিয়েছেন তিনি। আরও পড়ুন: তুরস্ককে এফ-১৬ যুদ্ধবিমান দিতে চাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, জার্মানির নতুন যে কোনো সরকার ও চ্যান্সেলরে সাফল্য কামনা করছি। জার্মানির সরকারের মুখপাত্র স্টেফিন সেইবার্ট এক টুইটপোস্টে বলেন, বসফোরাসের ঐতিহাসিক তারাবিয়ায় জেলায় দুই নেতার মধ্যে বৈঠক হয়েছে। শরণার্থী গ্রহণ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের দিকে অভিবাসীদের ঢল সামলাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে তুরস্ক। সিরিয়া থেকে আসা ৩৭ লাখ অভিবাসী বর্তমানে তুরস্কে অবস্থান করছেন। এছাড়াও আফগানিস্তানসহ বিভিন্ন দেশ থেকে আসা শরণার্থীরা তুরস্কে আশ্রয় নিয়েছেন। তুরস্কের সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের শরণার্থী চুক্তির অন্যতম কারিগর মেরকেল। এতে আশ্রয়প্রার্থী শরণার্থীদের আটকে দেওয়ার বিনিময়ে আর্থিক সহায়তা গ্রহণ করছে তুরস্কের সরকার।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply