Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » অতিরিক্ত সময়ে গড়াল জলবায়ু সম্মেলন




অতিরিক্ত সময়ে গড়িয়েছে স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোয় জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন। স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যায় এ সম্মেলনের পর্দা নামার কথা থাকলেও ঘড়ির কাঁটা ৬টা পেরিয়ে যাওয়ার পরও আলোচনা চলে আলোচকদের। আরও পড়ুন: কপ২৮ জলবায়ু সম্মেলনের আয়োজক আমিরাত বিবিসি জানিয়েছে, আলোচকরা এখনো চুক্তিতে থাকা কিছু শব্দ নিয়ে যুক্তিতর্ক চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় জরুরি ভিত্তিতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়টি সময়সীমার মধ্যে সম্পন্ন হওয়ার সম্ভাবনা মিলিয়ে যাচ্ছে। তবে একজন আলোচক বিবিসিকে বলেছেন, প্রতিনিধিরা গভীর রাত পর্যন্ত একটি চূড়ান্ত চুক্তি করার চেষ্টা চালিয়ে যাবেন বলে আমি বিশ্বাস করি। প্রয়োজন হলে এ আলোচনা পর্যন্ত গড়াতে পারে। কপ জলবায়ু সম্মেলন অতিরিক্ত সময়ে গড়ানোর ঘটনা অস্বাভাবিক কিছু নয়। এর আগেও চূড়ান্ত চুক্তির ক্ষেত্রে নির্ধারিত সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার ইতিহাস রয়েছে। কপের প্রেসিডেন্ট অলোক শর্মা ইতিমধ্যে দুবার সংবাদ সম্মেলন বাতিল করেছেন। শুক্রবার বিকেলে জলবায়ু সম্মেলন নিয়ে তার সংবাদ সম্মেলন আয়োজনের কথা ছিল। কিন্তু আলোচকরা এখনো যুক্তিতর্ক চালিয়ে যাওয়ায় সংবাদ সম্মেলন বাতিল করা হয়েছে। এদিকে, সম্মেলন শেষ হওয়ার আগে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বিশ্বনেতাদের উদ্দেশে বলেন, ‘এটাই সেই মুহূর্ত। শুক্রবার বিকেলে জনসন আরও বলেন, আলোচকদের চুক্তির বক্তব্য অনুধাবন করতে হবে। আমাদের এতে সম্মত হওয়ার একটি পথ খুঁজে বের করতে হবে। তা না হলে আমরা এটিকে উড়িয়ে দেওয়ার ঝুঁকির মধ্যে পড়ে যাব। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী আরও বলেছেন, উন্নয়নশীল বিশ্বকে প্রয়োজনীয় পরিবর্তন করতে সাহায্য করার জন্য আমাদের টেবিলে নগদ অর্থ আরও বেশি করে ঢালতে হবে। শুক্রবার রাতে কপ-২৬ প্রেসিডেন্ট অলোক শর্মা বলেছেন, রাতে কোনো চুক্তি হচ্ছে না। জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দেওয়া প্রতিনিধিদের কাছে দেওয়া বার্তায় অলোক শর্মা আরও বলেছেন, তিনি ও তার দল মিলে সব পক্ষের সঙ্গে নিবিড় আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। পর্যালোচনা করা চুক্তির নথিটি রাতে আবার বিতরণ করা হবে। একই সময়ে আলোচনা চলবে। তিনি আশা করছেন শনিবার সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও সম্মেলন সমাপ্ত করা সম্ভব হবে। এর আগে স্কটল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টার্জন বলেছেন, তিনি গ্লাসগো জলবায়ু সম্মেলনের ফলাফল সম্পর্কে সতর্কতার সঙ্গে আশাবাদী। শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত বড় ছাড় দেওয়া হয়েছে। তবে কিছু দেশ এখনো তাপমাত্রা বৃদ্ধি ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে আটকানোর জন্য এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট ক্ষতিপূরণের জন্য আরও বেশি চাপ দিচ্ছে। স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন শীর্ষ সম্মেলনে (কপ-২৬) ২০০টি দেশের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেছেন। সংবাদ সংস্থা এপি জানিয়েছে, গত রোববার শুরু হওয়া এই সম্মেলন চলবে আজ ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত। এই সম্মেলনে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আলোচনায় কিছু বিশেষায়িত শব্দ ঘুরেফিরে বারবার ব্যবহৃত হয়েছে। 'কনফারেন্স অফ দ্য পার্টিস টু দ্য ইউএন ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন ক্লাইমেট চেঞ্জ' এর সংক্ষিপ্ত রূপ হচ্ছে কপ। এ সম্মেলন প্রথম অনুষ্ঠিত হয় ১৯৯৫ সালে, যেখানে মূলত ১৯৯২ সালে কিয়োটো প্রোটোকলে সই করা দেশগুলো অংশ নিয়েছিল। সেবারই প্রথমবারের মতো কিছু দেশ গ্রিনহাউজ গ্যাস নিঃসরণকে নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ হয়েছিল এবং এ দেশগুলোই পরে ২০১৫ সালে প্যারিস চুক্তিতে সই করে। ৬ বছর আগে ফ্রান্সের রাজধানীতে সরকারপ্রধানরা দুটি লক্ষ্যমাত্রার ব্যাপারে একমত হন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply