Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধের বিক্ষোভে পুলিশের স্মোক বোমা




নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানিয়ে তুরস্ক ও মেক্সিকোতে বিক্ষোভে কাঁদানে গ্যাস ও স্মোক বোমা মেরেছে দাঙ্গা পুলিশ। এছাড়া মেক্সিকোর গুয়ামাস শহরে নারী মেয়রের ওপরের হামলার ঘটনায় গুলিতে তিনজন নিহত হয়েছেন। আর তুরস্কের ইস্তানবুলে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর ব্যাপক সংঘাতের খবর পাওয়া গেছে।-খবর বিবিসির লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধের আন্তর্জাতিক দিবসটিতে বার্সেলোনা, প্যারিস ও লন্ডনের রাস্তায়ও বিপুল মানুষের সমাগম দেখা গেছে। মেক্সিকোর সংবাদমাধ্যম বলছে, গুয়ামাসের সংঘাতে সশস্ত্র হামলাকারীরা শহরের পৌরভবনে ঢুকে পড়েন। তারা সেখানে গুলি করে এক নারী ও দুই পুরুষ বিক্ষোভকারীকে হত্যা করেন। দুই পুরুষের মধ্যে একজন সরকারি কর্মী ও অপরজন মেয়রের বডিগার্ড কার্লা করডোভা। হামলার সময় তারা পৌরভবনে উপস্থিত ছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, তারা গ্রেনেড বিস্ফোরণের মতো শব্দ শুনতে পেয়েছেন। এরপর তাদের কানে গুলির শব্দ ভেসে এসেছে। তবে হামলাকারীদের পরিচয় কিংবা তাদের উদ্দেশ্য এখনো জানা সম্ভব হয়নি। মেক্সিকো সিটিতে আরও একটি বিক্ষোভ হয়েছে। সেখানে ‘নারীদের ছোট করে দেখো না’ বলে স্লোগান দিতে দেখা গেছে। এছাড়া কেবল লিঙ্গের কারণে নারীদের হত্যা বন্ধেরও আহ্বান জানানো হয়েছে। আরও পড়ুন: নারীর প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উত্তাল বিশ্ব মেক্সিকোকে হাতুড়ি-বহনকারী বিক্ষোভকারীদের একটি ছোট্ট দলের ওপর স্মোক বোমা মেরেছে পুলিশ। এসব বিক্ষোভকারী পুলিশের হাতে থাকা ঢাল ছিনিয়ে নিতে চেয়েছিল। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের তথ্যানুসারে, দক্ষিণ আমেরিকার দেশীটতে প্রতিদিন গড়ে অন্তত ১০ নারী ও কন্যাশিশু নিহত হন। নারীদের সুরক্ষায় একটি আন্তর্জাতিক চুক্তি থেকে তুরস্ক নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ার কয়েক মাস পরে ইস্তানবুলের তাকসিম স্কয়ারে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। পুলিশ বিক্ষোভকারীদের চলে যেতে বললে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এক বিক্ষোভকারী বলেন, নারীরা হত্যাকাণ্ডের শিকার হচ্ছেন। তাদের প্রকাশ্যে খুন করা হচ্ছে। আমরা লড়াই চালিয়ে যাবো। মানবাধিকার গোষ্ঠীর দেওয়া তথ্য মতে, তুরস্কে চলতি বছরে ৩৪৫ নারী নিহত হয়েছেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply