Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » পুলিশপ্রধানের পদত্যাগেও অখুশি লন্ডনের মেয়র সাদিক খান




পুলিশপ্রধানের পদত্যাগেও অখুশি মেয়র সাদিক খান অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাওয়াই তীব্র সমালোচনার মুখে পদত্যাগ করেছেন লন্ডনের পুলিশ প্রধান ক্রেসিডা ডিক। তবে এতে সন্তুস্ট নয়

মেয়র সাদিক খান। তিনি বলেছেন, জনমনে আস্থা ও বিশ্বাস ফেরানোর মাধ্যমে পুলিশের দায়িত্ব পালন করা উচিত। সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে নারী নির্যাতন, বর্ণবাদ, অপহরণ, জাতিগত বৈষম্যসহ নানা রকম অপরাধ প্রবণতা বেড়ে গেছে। মানুষের মাঝে দৈন্যতা বেড়েছে। পুলিশের ওপর মানুষের আস্থা কমে গেছে। পুলিশ তার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করছে না। গেল সপ্তাহে এসব সমস্যার কথা তুলে ধরে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে পুলিশ ওয়াচ ফাউন্ড। এরই জেড়ে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার তীব্র সমালোচনার মুখে পদত্যাগ করেছেন লন্ডনের পুলিশ প্রধান ক্রেসিডা ডিক। এর পরপরই লন্ডনের মেয়র সাদিক খান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, পুলিশ প্রধানের পদত্যাগে তিনি সন্তুস্ট হতে পারেননি। তিনি সমস্যাগুলোর কারণ খুজে বের করে এর সমাধান করতে পারতেন। মানুষের মাঝে আস্থা ফেরানোর কাজ করতে পারতেন তিনি। ক্রেসিডা ডিক এমন সময়ে পদত্যাগ করলেন যখন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের করোনা বিধিনিষেধ ভঙ্গের তদন্তের দায়িত্ব পুলিশের উপর। সাদিক খান বলেন, আমি খুব অবাক হয়েছি পুলিশ প্রধানের পদত্যাগে। আমি এটা আশা করিনি। তিনি মানুষের মাঝে আস্থা ও বিশ্বাস বাড়ানোর কাজ করতে পারতেন। ক্রেসিডা ডিক ছিলেন একজন কাউন্টার টেরোরিজমে অভিজ্ঞ কর্মকর্তা। ১৯৩ বছরের লন্ডন পুলিশের ইতিহাসে তিনি ছিলেন প্রথম নারী পুলিশ কমিশনার। তার কমিশনার হিসেবে মেয়াদ ছিল ২০২৪ সাল পর্যন্ত। আরও পড়ুন: লন্ডনে মেয়র নির্বাচন: আগাম জরিপে এগিয়ে সাদিক খান সাম্প্রতিক কিছু ঘটনায় মানুষের আস্থা হারাতে বসেছে শত বছরের পুরোনো লন্ডন পুলিশ। খুন, হত্যা, ধর্ষণসহ নানা অপরাধে জর্জরিত যুক্তরাজ্যের রাজধানী। সম্প্রতি সারাহ ইভারার্ড নামে এক নারী অপহরণের পর ধর্ষণ ও খুন হন পুলিশের এক কর্মকর্তার হাতে। লন্ডনের ঐতিহ্যগত সংস্কৃতি রক্ষায় দায়িত্বে অবহেলার কথাও জানা যায় পুলিশের বিরুদ্ধে। বর্ণবাদের মত ঘৃণিত কাজও করেছে লন্ডন পুলিশ। সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ প্রধানের উপর অনাস্থা জানান মেয়র সাদিক খান। এর পরপরই ওই প্রতিবেদন প্রকাশের পর পদত্যাগ করলেন লন্ডন পুলিশ প্রধান। ক্রেসিডা ডিক বলেন, যেহেতু আমাকে মেয়রের সাথে মিলেমিশে কাজ করতে হয়, আমার মনে হয়েছে তিনি আমার উপর আস্থা রাখতে পারছেন না। আমার নেতৃত্বে খুশি নন মেয়র। আমার মনে হয়েছে পদত্যাগ করার এটাই উপযুক্ত সময়। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন, ক্রেসিডা অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। ৪০ বছরের নিরন্তর দায়িত্ব শেষ করার জন্য তাকে ধন্যবাদ জানান মেয়র সাদিক খান।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply