Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » গ্যাস-বিদ্যুতের ভর্তুকি কমানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর




গ্যাস-বিদ্যুতে ভর্তুকি থেকে ধীরে ধীরে সরে আসার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনার কথা জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভর্তুকি, ভর্তুকি, ভর্তুকি। আর কত। এটি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে সভায়। ভর্তুকি থেকে আমাদের সরে আসতে হবে। ভর্তুকি ন্যায়সঙ্গত নয়, ভর্তুকি কোনো খয়রাতি নয়। অপচয় রোধ ও চুরি ঠেকাতে পর্যায়ক্রমে গ্যাস-বিদ্যুতে ভর্তুকি কমানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রাথমিকভাবে বাণিজ্যিক খাত বিশেষ করে যেখানে বড় বড় শিল্প কারখানা গড়ে উঠছে এসব স্থানে ধীরে ধীরে গ্যাস ও বিদ্যুতে ভর্তুকি কমাতে বলেছেন তিনি। আরও পড়ুন: একনেকের সভায় ১০ প্রকল্প উপস্থাপন একনেক সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, কোনো না কোনো ব্যক্তি পাচ্ছে, কোনো না কোনো ব্যক্তি দিচ্ছে। এটা অবশ্যম্ভাবী সত্য। ভর্তুকি ইজ অ্যা ভেরি সিরিয়াস ম্যাটার। উই মাস্ট গেট আউট অব দিস সিস্টেম। ‌একনেকে ৬১৯ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারিং প্রজেক্ট ইন ডিস্ট্রিবিউশন জোন অব বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ড’ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, বড় বড় খাতে যারা বিদ্যুৎ ও গ্যাস ব্যবহার করেন তারা গরিব নয়। গুলশান বনানীতে যারা বসবাস করেন তারা গরিব নয়। সেজন্য প্রাথমিকভাবে বড় বড় শিল্প খাতের গ্যাস ও বিদ্যুতে ভর্তুকি কমাতে বলেছেন। এ ছাড়া ভর্তুকি কমানোর কৌশল বের করতে বলেছেন তিনি। আমাদের সবার প্রতি এটা উপদেশ প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে ভর্তুকি থেকে সরে আসার কৌশল বের করুন ধীরে ধীরে। একবারে করলে তো পড়ে যাবে। সো লেট আস কাম আউট অব দিস সিস্টেম, যোগ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী। মন্ত্রী বলেন, ভর্তুকি কোনো সভ্য দেশের সমাধান নয়। তাই ধীরে ধীরে গ্যাস-বিদ্যুতের ভর্তুকি থেকে সরে আসতে হবে। তবে কৃষি ও নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য গ্যাস-বিদ্যুতে ভর্তুকি অব্যাহত থাকবে। তবে বড়লোকদের জন্য ধীরে ধীরে ভর্তুকি উঠে যাবে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, যখন বিদ্যুৎ নিয়ে কথা হচ্ছিল, বিদ্যুতের মিটারিং নিয়ে, তখন মিটারিংয়ে বিদ্যুতের মূল্য, বিদ্যুতের কস্ট, বিদ্যুতের নানা ব্যবহার নিয়ে অনেক কথা-বার্তা হয়েছে। তখনই এ কথাটা এসেছে যে, ভর্তুকি আমরা অনেক ক্ষেত্রে দিচ্ছি। বিদ্যুতের ক্ষেত্রেও দিচ্ছি। এটা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসার পথ খুঁজে বের করতে হবে। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে এনইসি সম্মেলন কক্ষের সঙ্গে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে ধরেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply