Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » কিয়েভে ১০০ টনের পারমাণবিক বোমা ফেললে কী হবে?




বিশ্বজুড়ে আলোচনায় রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের ফলে কী হচ্ছে তা জানতে সবাই উদগ্রীব হয়ে আছে। রাশিয়ার হাতে এই মুহূর্তে সাড়ে ৬ হাজার পরমাণু অস্ত্র রয়েছে। রাশিয়া যদি ১০০ কিলোটন ওজনের পরমাণু বোমা কিয়েভের ওপর ফেলে তা হলে প্রায় এক বর্গ কিলোমিটার এলাকা জ্বলে পুড়ে ছাই হয়ে যাবে। রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, যদি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হয়, তাহলে সেখানে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হবে এবং সেটি হবে ধ্বংসাত্মক। বুধবার (২ মার্চ) তিনি এই মন্তব্য করেন বলে রুশ সংবাদ সংস্থা আরআইএ’র বরাত দিয়ে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। ল্যাভরভ বলেন, কিয়েভ যদি পরমাণু অস্ত্র অর্জন করে, তাহলে তা হবে রাশিয়ার জন্য ‘সত্যিকারের বিপদ’। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির সাংবাদিক স্টিভ রোজেনবার্গ মন্তব্য করেছেন, পুতিনের ওপর ভরসা নাই। তিনি কোনো কাজ করতে পারবেন না বা কোনোদিন করতে পারেন না - এমন ধারণা ভুল। দেখা যাবে তিনি ঠিকই ওই কাজটি করেছেন। এর আগে পুতিন ক্রিমিয়ার সঙ্গে রাশিয়াকে যুক্ত করেছেন। দনবাসে যুদ্ধ শুরু করলেন। পুরোদমে ইউক্রেনে হামলা চালালেন। অনেকে ভেবেছিল, তিনি এসব করবেন না, কিন্তু তিনি তা করেছেন। আরও পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রের আকাশেও উড়তে পারবে না রুশ বিমান কী হতে পারে পরমাণু বোমায়? এয়ার ব্লাস্ট ১: পরমাণু বোমার প্রথম এয়ার বিস্ফোরণ হলে তার প্রভাব সাড়ে তিন বর্গ কিলোমিটার এলাকায় ভয়ানক কম্পন অনুভূত হবে। শুধু তাই নয়, ১০ বর্গ কিমি এলাকা জুড়ে পরমাণু তেজস্ক্রিয়তা ছড়িয়ে পড়বে। বছরের পর বছর ধরে প্রজন্মের পর প্রজন্ম সেই তেজস্ক্রিয়তার শিকার হবে। পাঁচ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হবে। এয়ার ব্লাস্ট ২: এর প্রভাবে ১৪.২ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ঘরবাড়ি সব ভেঙে পড়বে। ৪৮ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে পড়বে থার্মাল রেডিয়েশন। ১৫-২৭ লাখ মানুষ এই তেজস্ক্রিয়তার শিকার হবেন। শুধু তাই নয়, এর প্রভাব পৌঁছতে পারে ৯৪ বর্গ কিলোমিটার পর্যন্ত। যার জেরে ঘরের জানালার কাচ ভেঙে যেতে পারে। ১৯৪৫ সালের ৬ আগস্ট জাপানের হিরোশিমায় আমেরিকা ‘লিটল বয়’ নামে যে পরমাণু বোমাটি ফেলেছিল সেটির শক্তি ছিল প্রায় ১২-১৫ কিলোটন টিএনটির বিস্ফোরণ ক্ষমতার সমান। যার প্রভাবে পাঁচ বর্গমাইল এলাকা পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছিল। মৃত্যু হয়েছিল ১৪ হাজার মানুষের। সেই ঘটনার পর প্রায় আট দশক কেটে গিয়েছে। প্রযুক্তি অনেক উন্নত হয়েছে। তার সঙ্গে পরমাণু অস্ত্রও আরও ঘাতক হয়েছে। বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলোর হাতে যে পরমাণু অস্ত্র রয়েছে তা সেই সময়ের তুলনায় কতটা ভয়ানক প্রভাব ফেলতে পারে তা সহজেই অনুমেয়।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply