Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » রুশ হামলায় ধ্বংস হাসপাতাল, বাড়ি, স্কুলও




শিশুদের নার্সারি স্কুল থেকে হাসপাতাল, বসত বাড়ি থেকে অফিস বিল্ডিং। রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না ইউক্রেনের কোনও অট্টালিকাই। ইউক্রেন সরকারের কাছ থেকে শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া রুশ আগ্রাসনের বলি হয়েছেন অন্তত দু’হাজার সাধারণ মানুষ। এর মধ্যেই অন্তত ন’লক্ষ মানুষ ইউক্রেন ছেড়ে অন্যত্র পাড়ি দিয়েছেন। যাকে সাম্প্রতিক কালে ইউরোপে সবচেয়ে দ্রুতগতির গণনিষ্ক্রমণ হিসেবে অভিহিত করছেন কেউ কেউ। ইউক্রেন সরকার বিভিন্ন সূত্রে মারফত দাবি করছে, এখনও অক্ষত দেশের দুই প্রধান শহর, রাজধানী কিভ ও দ্বিতীয় বৃহত্তম নগরী খারকিভ। পাল্টা মস্কো থেকে দাবি করা হয়েছে, খেরসন দখল করে ফেলেছে রুশ সেনা। যদিও এই খবর স্বীকার করেনি ইউক্রেন। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্‌ক্সির পরামর্শদাতার দাবি, আড়াই লক্ষ জনসংখ্যার খেরসনে এখনও প্রতিরোধ জারি রয়েছে। তা মোটেই রুশ বাহিনীর কব্জায় চলে যায়নি। বুধবার সকাল থেকেই খারকিভে বিমান হামলা চালাতে থাকে পুতিনের বাহিনী। রুশ প্যারা ট্রুপার নামতে থাকে। রাস্তায় রাস্তায় শুরু হয়ে যায় মুখোমুখি লড়াই। একই সঙ্গে চলতে থাকে বিমান থেকে লক্ষ্য নির্দিষ্ট করে হামলাও। গোটা দেশেই রুশ হামলার ক্রমশ বিস্তার ঘটছে। কিয়েভে কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে মুহুমুর্হু বিস্ফোরণের বিকট আওয়াজ। কিয়েভের টেলিভিশন টাওয়ারও উড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়া। হামলা অব্যাহত। ক্রেমলিন সূত্রে খবর, এরই মধ্যে দ্বিতীয় পর্যায়ের শান্তি আলোচনার জন্য বেলারুশে প্রতিনিধিদের পাঠিয়ে দিয়েছে রাশিয়া। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন, রাশিয়া যদি সত্যিই আলোচনা চায়, তাহলে আগে বোমা বর্ষণ থামাতে হবে। সর্বশেষ ইউক্রেনের দক্ষিণ-পূর্বের শহর মারিউপোলে টানা কয়েক ঘণ্টা বিরতিহীনভাবে গোলাবর্ষণ করেছে রাশিয়ার সেনারা। শহরটির উপ-মেয়র সার্গেই ওরলভ জানিয়েছেন, নদীর পাশে অবস্থিত শহরটির একটি অংশ পুরোপুরি ধসিয়ে দিয়েছে রাশিয়া। তারা আশঙ্কা করছেন এই অব্যহত গোলাবর্ষণে কয়েকশ মানুষ মারা গেছেন। গণমাধ্যম বিবিসিকে রাশিয়ার হামলার ব্যপারে শহরটির উপ-মেয়র বলেন, আমরা জানি না কতজন মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে আমাদের বিশ্বাস কয়েকশ মানুষ মারা গেছেন। আমরা দেহগুলো উদ্ধারও করতে পারছি না।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply