Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » ইস্তাম্বুলে বৈঠক : ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের অবসান চান এরদোয়ান




তুরস্কের ইস্তাম্বুলে ইউক্রেন-রাশিয়ার প্রতিনিধিদলের মধ্যে বৈঠকে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধ এক মাস পেরিয়ে যাওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেছেন, ‘ইউক্রেন ও রাশিয়া দুই দেশই তুরস্কের মূল্যবান বন্ধু। আর এ জন্যই দুই দেশের মধ্যে মধ্যস্থতা করার দায় রয়েছে তুরস্কের।’ ইস্তাম্বুলে নিজ কার্যালয়ে রাশিয়া ও ইউক্রেনের প্রতিনিধিদলের মধ্যে বৈঠক চলাকালে এ কথা বলেন এরদোয়ান। সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে। এরদোয়ান আরও বলেন, ‘এই যুদ্ধ পরিস্থিতি বন্ধ করা এখন দুপক্ষের হাতেই রয়েছে।’ এ ছাড়া সংঘাত অব্যাহত থাকলে কোনো পক্ষেরই উপকার হবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ইউক্রেন-রাশিয়ার প্রতিনিধিদলের উদ্দেশে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়ে আপনাদের স্বাগত জানাতে এবং শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আপনাদের প্রচেষ্টায় অবদান রাখতে পেরে আমরা আনন্দিত। আমি মনে করি, এই সভা ও আলোচনা আপনাদের দেশ, অঞ্চল ও মানবজাতির জন্য শুভবার্তা বয়ে নিয়ে আসবে।’ এর আগে স্থানীয় সময় সকালে ইউক্রেনের একটি প্রতিনিধিদল রাশিয়ার সঙ্গে শান্তি আলোচনায় অংশ নিতে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে পৌঁছায়। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান এ আলোচনার আয়োজন করেছেন। তুরস্কের স্থানীয় সময় আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে বৈঠক শুরু হয়। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউক্রেনের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেক্সি রেজনিকভ ও প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের প্রধান মিখাইল পোডোলিয়াক। প্রতিনিধিদলটি বলছে, তাঁদের আলোচনায় অগ্রাধিকার পাবে যুদ্ধবিরতি নিশ্চিত করা। যদিও এটি সম্ভব কিনা, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। আগে থেকেই রাশিয়া বলে আসছে, ন্যাটোতে যোগদানের যে ইচ্ছা ইউক্রেনের মধ্যে রয়েছে, তা ত্যাগ করতে হবে। যদিও এর মধ্যেই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জানিয়েছেন, এক্ষেত্রে তিনি আপস করতে ইচ্ছুক। এ ছাড়া ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রিত অঞ্চল এবং ক্রিমিয়া পরিস্থিতি আলোচনার অংশ হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply