Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » পি কে হালদারকে ৭ জুন পর্যন্ত কারাগারে রাখার নির্দেশ




পি কে হালদারকে ৭ জুন পর্যন্ত কারাগারে রাখার নির্দেশ হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট মামলার পলাতক আসামি পি কে হালদারকে আগামী ৭ জুন পর্যন্ত কারাগারে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন কলকাতার আদালত। দুই দফায় ১৩ দিনের রিমান্ডের পর

শুক্রবার (২৭ মে) তাকে আদালতে তোলা হয়। এদিন মামলার অগ্রগতি নিয়ে শুনানির পর আগামী ৭ জুন পর্যন্ত কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। প্রথম দফায় তিন দিনের রিমান্ড শেষে গত ১৭ মে পি কে হালদার ছাড়াও পরিবারের আরও ৫ সদস্যকে আদালতে তোলা হয়। এ সময় পি কে হালদারকে হেফাজতে নেয়ার পর মামলার কতটা অগ্রগতি হয়েছে তা আদালতকে জানায় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। সেই সঙ্গে আবারও ১৪ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রশান্ত কুমার হালদারকে (পি কে হালদার) আদালত ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আরও পড়ুন : পি কে হালদারকে বাংলাদেশে ফেরানো সম্ভব? এর আগে এদিন সকালে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে ইডি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় পি কে হালদারকে। এ সময় সাংবাদিকরা তার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করলেও তিনি কোনো উত্তর দেননি। ভারতে কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে কি না সে বিষয়েও কোনো উত্তর দেননি পি কে হালদার। আর্থিক খাতে আলোচিত পি কে হালদার ও তার পাঁচ সহযোগীকে গত ১৪ মে পশ্চিমবঙ্গের অশোকনগর থেকে গ্রেফতার করে ইডি। পরে আদালতে তোলা হলে তাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। এরপর থেকেই তাদের দেয়া তথ্য অনুসারে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে পি কে হালদারের অনেক সম্পদের সন্ধান পায় ইডি। আরও পড়ুন : শিবশংকর পরিচয়ে লুকিয়ে ছিলেন পি কে হালদার এদিকে পি কে হালদারকে কোনো রাজনৈতিক প্রভাবশালী ব্যক্তি সাহায্য করেছিলেন কি না সে বিষয়টি তদন্ত করে দেখতে ইতোমধ্যেই মাঠে নেমেছে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা। গ্রেফতারকৃত পি কে হালদারের কাছ থেকে তথ্য পেয়েই এমন ৪০ জনের নামের তালিকা প্রস্তুত করেছেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। সেই তালিকায় রয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী। এছাড়া কয়েকজন জমির দালাল এবং ব্যাংক কর্মকর্তাও রয়েছেন। ইতোমধ্যে দুটি বেসরকারি ব্যাংকের সঙ্গে কথা বলেছেন গোয়েন্দারা। ওই দুটি ব্যাংকের সন্দেহজনক লেনদেনের সন্ধান পেয়েছেন তারা।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply