Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » মেহেরপুর বি এম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নন্দিত শিক্ষক আব্দুল মতিন




জন্ম-মৃত্যু রহস্যের জট আজও খোলেনি। ধুলাময়, মায়াময় এই পৃথিবীতে অগণিত আদম সন্তানের জন্ম-মৃত্যুর এই ধারাবাহিকতা চিরন্তন। জীবননাট্যের মঞ্চে এই যে রঙ্গলীলা অব্যাহত ধারায় চলছে, তার গুঢ় খবর কেউ জানে না। মৃত্যুই এর চিরন্তন সত্য। জন্মের সঙ্গেই মৃত্যু চির সাথী হয়ে আছে। ইংরেজিতে বলা হয় Man is Mortal. আর বিশ্ব মানবতার মুক্তির মহাসনদ মহাগ্রন্থ আল কুরআনে বলা হয়েছে কুল্লু নাফছিন যায়িকাতুল মউত। অর্থাৎ প্রত্যেক জীবকে মৃত্যুর শরাব পান করতেই হবে। আমরা জানি, মানুষ মরণশীল। আল্লাহপাক কুরআনুল করীমের ২৯ পারার সূরা মূলকের দ্বিতীয় আয়াতে বলেছেন, “আল্লাজি খালাক্বাল মাউতা ওয়ালহাইয়াতে লি ইয়াবলুহুকুম আইছুকুম আহছানু আমালা” অর্থাৎ তিনি জীবন ও মৃত্যু দিয়ে মানুষকে পরীক্ষা করেন কে বেশি উত্তম আমল করেছে। তবে কোনও কোনও মৃত্যু আমাদের অন্তরে দাগ কাটে, আমাদের কাঁদায়, আমাদের চোখ অশ্রুসিক্ত হয়, আমরা এখনও কিছু সময়ের জন্য বাকরুদ্ধ হয়ে যাই বা শোকে অধিক কাতর হয়ে যাই। এমনই একটি মৃত্যু ঘটছে ২৯ শে ফেব্রুয়ারি ২০২০ সালে। মেহেরপুরের শহরের ঐতিহ্যবাহী বি এম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক এই স্কুলের উন্নয়নের রূপকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা, মেহেরপুরের কৃতিসন্তান, ক্রিড়া সংগঠক, চৌকস খেলোয়াড়, আমার পিতৃ সমতুল্য মহান শিক্ষক আব্দুল মতিন স্যার। তিনি দুনিয়ার সমস্ত মায়া ত্যাগ করে তার দেশে-বিদেশে অসংখ্য অগণিত ছাত্রছাত্রী, আত্মীয়-স্বজন গুণগ্রাহী রেখে আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের ডাকে সাড়া দিয়ে মহান মওলার সান্নিধ্যে চলে গেছেন






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply