Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » ট্রেন ছাড়ছে বিলম্বে, ছাদভর্তি মানুষ, ভাঙল চাকার স্প্রিং




পরিবারের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে শেষ মুহুর্তে রাজধানী ছাড়ছে মানুষ। সাপ্তাহিক ছুটির দিনে শুক্রবার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ঘরমুখো মানুষের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। যাত্রী চাপে ঠাঁই নেই অবস্থা ট্রেনে। যে যেভাবে পারছে ট্রেনে উঠে পড়ছে। কেউ উঠছে ছাদে, কেউ বা ট্রেনের দরজার হাতল ধরে ঝুলছে। এভাবেই ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি ফিরছে মানুষ। শুক্রবার (৮ জুলাই) সকালে কমলাপুর রেলস্টেশনে গিয়ে দেখা যায় এমন চিত্র। সকাল থেকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে প্রতিটি ট্রেন বিলম্বে ছেড়েছে। ট্রেনের প্রত্যেকটা বগিতে তিল ধারণের ঠাঁই নেই। অন্যদিকে মানুষ উঠে পড়ছে ট্রেনের ছাদে। যাত্রীরা বলছেন, ঈদযাত্রায় সড়কে নানা দুর্ভোগ থাকায় তাদের প্রথম পছন্দ ট্রেন। এছাড়া খরচও কম। তাই তারা ট্রেনে বাড়ি যেতে চান। ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি যাওয়ার বিষয়ে এক যাত্রী বলেন, “সড়কপথে রাস্তায় প্রচুর জ্যাম থাকে। কষ্ট হলেও ট্রেনে যাই। ট্রেনের ভেতর ওঠার কোনো সুযোগ নাই, তাই ছাদে উঠেছি।” এদিকে, পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেনটি ওভার‌লো‌ডের কার‌ণে ক্ষতিগ্রস্ত হ‌য়ে টাঙ্গাই‌লের বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব রেল‌স্টেশ‌নে আটকা প‌ড়ে‌। এ‌তে চরম ভোগা‌ন্তি‌তে প‌ড়ে‌ন যাত্রীরা। শুক্রবার সকাল ৫টা ৪৫ মি‌নি‌টে বঙ্গবন্ধু রেল‌স্টেশন এলাকায় ঘটনাটি ঘ‌টে। বঙ্গবন্ধু রেল‌ স্টেশনমাস্টার (বু‌কিং) রেজাউল ক‌রিম ব‌লেন, “ঢাকা থে‌কে ছে‌ড়ে আসা পঞ্চগড় এক্স‌প্রেস ট্রেন‌টি ওভারলোডের কার‌ণে ক‌য়েক‌টি বগির চাকার স্প্রিং ভে‌ঙে যায়। ট্রেন‌টি সকাল ৫টা ৪৫ মি‌নি‌টে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব রেল‌স্টেশ‌নে আসে। ট্রেন‌টি সেতু পার হওয়ার উপ‌যোগী না হওয়ায় রেল‌ স্টেশ‌নের মেরামত কাজ শুরু হয়।” পঞ্চগড়গামী ট্রেনযাত্রী ইসমাইল হোসেন বলেন, “পঞ্চগড় এক্সপ্রেসে বৃহস্পতিবার রাতে রওনা হয়েছি। ১২টার ট্রেন ছেড়েছে রাত তিনটায়। ভোর ৫টা থেকে যমুনা সেতুর পূর্বপাশে আটকা আছি। অতিরিক্ত যাত্রীর কারণে দুটি বগি দেবে গেছে। বর্তমানে মেরামতের কাজ চলছে। কখন বাড়ি যাব জানি না।” কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার মাসুদ সারোয়ার জানান, ট্রেনে যাত্রীর চাপ বেড়েছে। কয়েকটি ট্রেন বিলম্বে ছেড়েছে। মানুষের ঈদ যাত্রা নিরাপদ ও ভোগান্তিহীন করতে আমরা নিরলসভাবে কাজ করছি।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply