Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » কাকতালীয়! কোহলির রেকর্ড ছুঁতে বাবরেরও ৭৩




১১০টির বেশি ইনিংসে সেঞ্চুরি নেই বিরাট কোহলির। টানা অফফর্মের কারণে ভারত দল থেকেই ছিটকে গেছেন। এর পরও বিগত সময়ে করা দুর্দান্ত সব রেকর্ডের কারণে বর্তমান প্রজন্মের সেরা ব্যাটার বলা হচ্ছে কোহলিকে। এ প্রসঙ্গে কোহলির সঙ্গে তুলনা করা হয় পাকিস্তানের বর্তমান অধিনায়ক বাবর আজমকে। দারুণ ফর্মে থেকে রেকর্ডের পর রেকর্ড ভেঙে যাচ্ছেন বাবর। কোহলির কোন রেকর্ডটি বাবর নিজের দখলে নিয়েছেন— সেটিই মুখ্য আলোচনার বিষয়। অনেক বিশ্লেষকের মতে, এই ফর্ম ধরে রাখতে পারলে একটা সময় কোহলির অনেক রেকর্ড নিজের করে নেবেন বাবর আজম। এমন সব আলোচনার মধ্যেই ঘটল কাকতালীয় এক ঘটনা। কোহলির একটি রেকর্ড ছুঁতে গিয়ে একবিন্দুতে মিলে গেলেন বাবর। সেটি হচ্ছে— টেস্ট ফরম্যাটে দ্রুততম তিন হাজার রানের মাইলফলক। এ ক্ষেত্রে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী কোহলির সমান ৭৩ ইনিংসে টেস্ট ক্যারিয়ারের ৩০০০ রান পূরণ করেছেন বাবর। শ্রীলংকার বিপক্ষে চলতি গল টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে জয়সুরিয়ার বলে বোল্ড হওয়ার আগে ১০৪ বলে ৫৫ রান করেন বাবর। ইনিংসের ৫৬.৩ ওভারে মেন্ডিসের বল ডিপমিডউইকেটে ঠেলে দিয়ে ১ রান নিয়েই ৩ হাজারি ক্লাবে ঢুকে পড়েন। সে সময় ৩০ রানে ব্যাট করছিলেন বাবর। টেস্টে ৩ হাজারি ক্লাবে প্রবেশে ৭৩ ইনিংস লেগেছিল কোহলির। এর পর আরও ১০০ ইনিংস খেলে কোহলি এখন ৮ হাজারি ক্লাবের সদস্য হয়েছেন। বাবরের সে পথ পাড়ি দিতে খেলে যেতে হবে আরও কয়েক বছর। এদিকে পাকিস্তানের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে দ্রুততম তিন হাজার টেস্ট রান করার নিরিখে ৬ নম্বরে পৌঁছেছেন বাবর। এ রেকর্ডে প্রথম ও দ্বিতীয় অবস্থানে জাভেদ মিয়াঁদাদ ও মোহাম্মদ ইউসুফ। অবশ্য তারা দুজনই সমান ৬৭তম ইনিংসে এই কীর্তিটি গড়েছিলেন। এর পর আরেক কিংবদন্তি ব্যাটার সাঈদ আনোয়ারের অবস্থান। তার লেগেছিল ৬৮ ইনিংস। চতুর্থ অবস্থানে ইউনিস খান। তিন হাজার টেস্ট রানের জন্য ৭০ ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। ৭২ টেস্ট ইনিংসে এই ক্লাবের সদস্য হন মজিদ খান। সামগ্রিকভাবে টেস্ট ক্রিকেটে দ্রুততম তিন হাজার রানের বিশ্বরেকর্ডটি স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের। অসি কিংবদন্তি মাত্র ৩৩ ইনিংসে এ মাইলফলক স্পর্শ করেছিলেন। তথ্যসূত্র: ক্রিকইনফো






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply