Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » হাটে হাঁড়ি ভাঙলেন ডোমিঙ্গো, খেপে গেছে বিসিবি




হাটে হাঁড়ি ভাঙলেন ডোমিঙ্গো, খেপে গেছে বিসিবি

টাইগারদের টানা ব্যর্থতায় দলের হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর থাকা না থাকা নিয়েই সংশয় ছিল। শেষ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি দলের কোচের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেলেও বাকি দুই ফরম্যাটের জন্য টিকে গেছেন তিনি। বোর্ডের এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগতই জানিয়েছিলেন এই প্রোটিয়া কোচ। তবে সম্প্রতি এক গণমাধ্যমে বোর্ড নিয়ে রীতিমতো হাটে হাঁড়ি ভেঙে দিয়েছেন রাসেল ডোমিঙ্গো। যেখানে তিনি বলেছেন, বিসিবির কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপের কারণে টি-টোয়েন্টি দল নিয়ে ঠিকমতো কাজ করতে পারেননি তিনি। আর হেড কোচের এমন মন্তব্যে রীতিমত খেপে গেছে ক্রিকেট বোর্ড। এজন্য কারণ দর্শানোর নোটিশও (শোকজ) পাঠানো হতে পারে তাকে। বুধবার এমনটাই আভাস পাওয়া গেছে বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যানের কথায়। ডোমিঙ্গো বলেছিলেন, টি-টোয়েন্টি দলের ক্রিকেটাররা খারাপ পারফরম্যান্স করলে তাদের ওপর ধমক ও চিৎকার-চেঁচামেচি করার জন্য বোর্ডের তরফ থেকে বলে দেয়া হতো, যা তার কোচিং দর্শনে একেবারেই নেই। এ ছাড়া বোর্ডের বিভিন্ন কর্তার মন্তব্যের কারণে তিনি নিজের কাজটা ঠিকমতো করতে পারতেন না বলেও জানান ডমিঙ্গো। তিনি আরও বলেন, ‘আসলে ধমক দিয়ে বা চিৎকার-চেঁচামেচি করে খুব একটা লাভ হয় না। যখন ওরা ভুল করে, তখন বাজেভাবে সমালোচনা করলে ক্রিকেটারদের সেরাটা পাওয়া যাবে না। আমি এটা করতে চাইনি।’ ডোমিঙ্গোর এমন মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় স্বাভাবিকভাবেই খেপে গেছে বোর্ড। এ বিষয়ে ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান জালাল ইউনূস বলেন, ‘বিষয়টা আগে আমরা খতিয়ে দেখি এবং এটা নিয়ে আমার কাছে মনে হয়, বোর্ড থেকে তার কাছে একটা চিঠি যাওয়া উচিত যে, বক্তব্যগুলোতে আসলে কী বোঝাতে চেয়েছেন তিনি। যদি আমাদের পরিষ্কার করে, তাহলে আমরা বুঝতে পারব কোথায় সমস্যা হচ্ছে।’ ডোমিঙ্গোর সঙ্গে আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নিতে চায় বিসিবি। জালাল ইউনুস জানান, ‘ডমিঙ্গোর সঙ্গে আগে আলাপ করি। পরবর্তী সময়ে আমাদের অ্যাকশনটা কী হবে, সেটা আপনাদের জানাতে পারব। এ জন্য বিষয়টা আমাদের পরিষ্কার হতে হবে। প্লেয়ারদের সঙ্গে কাদের বেশি কথা হয়, সেটা তো পরিষ্কার। যখন দল কোনো সফরে যায়, তখন সেখানে হেড কোচ থাকে, টিম ডিরেক্টর থাকেন, সাপোর্ট স্টাফরাও থাকেন।’ সাক্ষাৎকারে ডোমিঙ্গো যে শব্দগুলো ব্যবহার করেছেন, সেগুলোর ব্যাপারেও আপত্তি জানিয়েছেন বিসিবির এই কর্মকর্তা। তিনি বলেন, ‘যে ভাষা এখানে ব্যবহার করা হয়েছে, যেমন- ধমক দেয়া হয়, এটা আপত্তিকর। প্লেয়ারকে ধমক দিয়ে কথা বলা কারো পক্ষেই সম্ভব নয়। টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে খেলোয়াড়দের কোনো কিছু বোঝানোর ব্যাপার হলে সেটা আলাদা ইস্যু। তবে খেলোয়াড়দের সঙ্গে কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্টের বাইরের কেউ সরাসরি কথা বলতে পারে না। এই এখতিয়ার তাদের নেই।’ ডোমিঙ্গো কোড অব কন্ডাক্ট ভেঙেছেন উল্লেখ করে ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমি এসব বিষয় বিসিবি প্রেসিডেন্টকে জানিয়েছি। ডোমিঙ্গো তো কোড অব কন্ডাক্ট ভেঙেছেন। এ ধরনের কথা তিনি বলতে পারেন না। কারণ, ডোমিঙ্গো আমাদের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ কোচ। তিনি এখানে কতগুলো অভিযোগ দিয়েছেন। এগুলো আমাদের জানতে হবে। হুট করে আমি সিদ্ধান্ত দিতে পারব না।’






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply