Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » সুদানে জাতিগত সংঘর্ষে নিহত ১৭০




উত্তর আফ্রিকার দেশ সুদানের দক্ষিণাঞ্চলীয় ব্লু নাইল রাজ্যে দুই ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মানুষের সংঘর্ষে অন্তত ১৭০ জন নিহত হয়েছে। সম্প্রতি রাজ্যটিতে সংঘর্ষ ও রক্তপাতের ঘটনা বেড়ে গেছে। সংঘর্ষে নিহত হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার (২০ অক্টোবর) রাজ্যটির রাজধানী দামাজিনের রাস্তায় বের হন সর্বস্তরের মানুষ। খবর আল-জাজিরার। সংঘর্ষের সূত্রপাত হয় গত সপ্তাহে। জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে হাউসা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সঙ্গে আরেক গোষ্ঠীর সংঘর্ষ হয়। রাজধানী খার্তুমের দক্ষিণে ৫০০ কিলোমিটার রোজাইরেসের কাছে ওয়াদ আল-মাহি এলাকায়এই সংঘর্ষের ঘটনার মূল কেন্দ্র। সংঘর্ষে বন্দুক ও আগুন ব্যবহারের কারণে বহু মানুষ ঘরছাড়া হয়েছে। সুদানের ওয়াদ আল-মাহি হাসপাতালের প্রধান আব্বাস মুসা বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে গত বুধবার (১৯ অক্টোবর) ও বৃহস্পতিবার (২০ অক্টোবর) নারী, শিশু ও বৃদ্ধসহ মোট ১৫০ জন নিহত হয়েছেন।এ ছাড়া এ সহিংসতায় কমপক্ষে ৮৬ জন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দামাজিনের রাস্তায় শত শত মানুষ নামেন এবং তারা আঞ্চলিক গভর্নরের পদত্যাগের দাবি করেন। তারা সহিংসতা চান না বলেও উল্লেখ করেন। সুদানে জাতিসংঘের সহায়তা কার্যক্রমের প্রধান এডি রোই বলেছেন, তিনি ‘গভীরভাবে উদ্বিগ্ন’। ১৩ অক্টোবর সংঘর্ষ শুরুর পর থেকে ১৭০ জন নিহত ও ৩২৭ জন আহত হওয়ার কথা জানান তিনি। অবশ্য সাম্প্রতিক মাসগুলোতে নিয়মিতভাবেই জাতিগত সহিংসতায় কাঁপছে ব্লু নাইল প্রদেশ। গত জুলাই মাস থেকে শুরু হওয়া ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষে অক্টোবরের শুরুতে ১৪৯ জন নিহত হন। ইউএন অফিস ফর দ্য কোঅর্ডিনেশন অব হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাফেয়ার্স (ওসিএইচএ)-এর তথ্য অনুসারে, গত সপ্তাহে নতুন করে ছড়িয়ে পড়া সংঘর্ষে আরও ১৩ জন নিহত হয়েছেন। আরও পড়ুন: সুদানে উপজাতি সংঘর্ষে মৃত বেড়ে ৬০ ব্লু নাইল রাজ্যে ডজন খানেক এমন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর লোকজন রয়েছে। প্রায়ই তাদের মধ্যে জাতিগত সংঘাত দেখা দেয়। জাতিসংঘের ওই সংস্থাটি বলছে, সম্প্রতি ওই এলাকা থেকে এক হাজার ২০০ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে। সুদানের একটি তৃণমূল গণতন্ত্রপন্থি গোষ্ঠী ব্লু নাইল রাজ্যে নিরাপত্তার অভাবের জন্য দেশটির সামরিক শাসকদের দায়ী করেছে। এসব প্রান্তিক গোষ্ঠীকে সুরক্ষা না দেয়ার অভিযোগও এনেছে তারা।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply