Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » উদাহরণ মুসলিমরা! লক্ষ্মী-সরস্বতী-বজরংবলী পুজোর যৌক্তিকতা নিয়েই প্রশ্ন বিজেপি বিধায়কের




উদাহরণ মুসলিমরা! লক্ষ্মী-সরস্বতী-বজরংবলী পুজোর যৌক্তিকতা নিয়েই প্রশ্ন বিজেপি বিধায়কের 'মুসলিমরা তো লক্ষ্মীপুজো করেন না! মুসলিমরা সরস্বতীর আরাধনাও করেন না! মুসলিমরা তো বজরংবলীর পুজোও করেন না! তাই বলে কি তাঁরা.....?'

জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটাল ব্যুরো: লক্ষ্মীপুজো নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য বিজেপি বিধায়কের! তিনি প্রশ্ন তুললেন, 'মুসলিমরা তো লক্ষ্মীপুজো করেন না। তবে তাঁরা কি ধনী নন?' স্বাভাবিকভাবেই ধনদেবীর পুজো নিয়ে এমন প্রশ্ন প্রচলিত বিশ্বাসের মূলে কুঠারাঘাত। কারণ প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী, লক্ষ্মী হচ্ছেন ধনদেবী। ধন লাভের আশাতেই হিন্দুরা লক্ষ্মীর আরাধনা করে থাকেন। লক্ষ্মীর কৃপায় সমৃদ্ধির প্রত্যাশা রাখেন। কিন্তু সেই বিশ্বাস নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিলেন বিজেপি বিধায়ক লালন পাসওয়ান। বিহারের ভাগলপুর জেলার পীরপৈন্তি কেন্দ্রের বিধায়ক হলেন লালন পাসওয়ান। 'আত্মা ও পরমাত্মা' নিয়ে বক্তব্য রাখছিলেন তিনি। সেখানেই তিনি বলেন, এই 'আত্মা ও পরমাত্মা বিষয়টি শুধুমাত্র মানুষের বিশ্বাস।' এরপরই তিনি হিন্দু দেবদেবীদের পুজোআচ্চা নিয়ে মন্তব্য করেন। তাঁর সেইসব মন্তব্যের জেরে ইতিমধ্যেই বিতর্ক ছড়িয়েছে। ভাগলপুরের শেরমারি বাজারে তাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়। কুশপুতুল পোড়ানো হয় লালন পাসওয়ানের। যদিও তাতে দমবার পাত্র নন তিনি। তাঁর সাফ দাবি, তাঁর কাছে নিজের বক্তব্যের সাপেক্ষে প্রমাণও রয়েছে। সেই বক্তব্যের মধ্যেই লালন পাসওয়ান প্রশ্ন তোলেন দীপাবলিতে লক্ষ্মীপুজো নিয়ে। তিনি বলেন, 'যদি আমরা একমাত্র লক্ষ্মীর আরাধনা করেই সম্পদ পেয়ে থাকি, তবে মুসলিমদের মধ্যে কোনও বিলিনিয়র বা ট্রিলিনিয়রথাকতেন না! মুসলিমরা লক্ষ্মীপুজো করেন না। কিন্তু তাই বলে কি তাঁরা ধনী নন? মুসলিমরা সরস্বতীর আরাধনাও করেন না। কিন্তু তাই বলে কি মুসলিমদের মধ্যে কোনও স্কলার নেই? তাঁরা কি আইএএস ও আইপিএস হন না?' প্রশ্ন তোলেন তিনি। এখানেই শেষ নয়। তিনি বলতে থাকেন 'যদি তুমি বিশ্বাস কর তাহলে তিনি দেবী, আর যদি না কর, তাহলে পাথরের মূর্তি মাত্র। এটা একদমই তোমার হাতে। তুমি দেবদেবীতে বিশ্বাস করবে কি করবে না! একটি যুক্তিগ্রাহ্য সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়ার জন্য আমাদের বিজ্ঞানসম্মতভাবে ভাবতে হবে। তুমি বিশ্বাস করতে বন্ধ করলে তোমার বুদ্ধি নির্ভর চিন্তন ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।' শুধু যে ধনবৃদ্ধির জন্য লক্ষ্মীর আরাধনা করার যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তাই নয়, বিজেপি বিধায়ক প্রশ্ন তুলেছেন বজরংবলী নিয়েও। আরও পড়ুন, হিন্দুদের তুলনায় মুসলিমদের বাল্যবিবাহ, কিশোরীদের গর্ভধারণের হার ৩০% বেশি, দাবি পিটিশনে বজরংবলীকে সাধারণত ক্ষমতা ও শক্তিলাভের কামনায় পুজো করা হয়ে থাকে। তাঁর প্রশ্ন, 'মুসলিম ও খ্রিস্টানরা তো বজরংবলীর পুজো করেন না। তবে কি তাঁরা শক্তিমান নন? যেদিন তুমি বিশ্বাস করা বন্ধ করবে। সেদিন এই সবকিছু থেমে যাবে। প্রসঙ্গত, এর আগে রাষ্ট্রীয় জনতা দল নেতা লালুপ্রসাদ যাদবরের সঙ্গে তাঁর কথোপকথন ফাঁস হয়ে গিয়ে শিরোনামে এসেছিলেন লালন পাসওয়ান।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply