Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » বিদ্যুৎ খাত নিয়ে পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে সংসদে উত্তাপ




বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত নিয়ে প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্যের পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে উত্তাপ ছড়িয়েছে সংসদে। বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতে হরিলুট চলছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশিদ। জবাবে বিএনপি আমলের দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ধরেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বলেন, আগামী নির্বাচনের আগে প্রকাশ করা হবে বিএনপির দুর্নীতির খতিয়ান। মঙ্গলবার (০১ নভেম্বর) অধিবেশনের প্রশ্নোত্তর পর্বে বিএনপি আমলের বিপরীতে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বর্তমান সরকারের কার্যক্রমের পরিসংখ্যান তুলে ধরেন প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বলেন, বিএনপি-জামায়াত আমলে বিদেশে গ্যাস রফতানির সিদ্ধান্তের জোরালো বিরোধিতা করে দেশকে দেউলিয়া হওয়া থেকে বাঁচিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াতের বিদেশে গ্যাস রফতানি সিদ্ধান্তে শেখ হাসিনা বাধা না দিলে আজ থেকে ১০ বছর আগে বাংলাদেশ দেউলিয়া হয়ে যেত। জ্বালানি প্রতিমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের প্রতিবাদ জানান বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ। দাবি করেন প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্যের পক্ষে উপযুক্ত প্রমাণ। বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতে হরিলুট চলছে, এমন অভিযোগ করে এ বিষয়ে সংসদে বিশেষ আলোচনার দাবি জানান হারুনুর রশীদ। আরও পড়ুন: পর্যায়ক্রমে সব গ্রাহককে স্মার্ট মিটারে নিয়ে আসা হবে: প্রতিমন্ত্রী বিএনপি দলীয় এ সংসদ সদস্য বলেন, বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতে যে হরিলুট ও ভয়ানক অব্যবস্থাপনা চলছে, তা নিয়ে একদিন আলোচনার জন্য সংসদে সময় দেয়া হোক। বিএনপির সংসদ সদস্যরা দীর্ঘ আলোচনা করবেন। পাল্টা জবাবে বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতে বিএনপি আমলের দুর্নীতির তথ্যপ্রমাণ সংসদে উপস্থাপনে স্পিকারের কাছে সময় দাবি করেন নসরুল হামিদও। বলেন, নাইকো কেলেঙ্কারি, খাম্বা বাণিজ্য, বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণসহ বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিএনপির দুর্নীতির খতিয়ান সরকারের হাতে রয়েছে। ইঙ্গিত দেন নির্বাচনের আগে তা প্রকাশ করার। জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী বলেন, নাইকো মামলা নিয়ে যে পরিমাণ প্রমাণ আমাদের হাতে আছে, যে পরিমাণ খোলাখুলি সাক্ষাৎকার তাদের নেতা তারেক জিয়ার বন্ধু এফবিআই এর কাছে দিয়েছে; সেগুলো আমরা দেখাব। সিদ্ধিরগঞ্জ বিদ্যুৎকেন্দ্রে যে পরিমাণ টাকা চুরি করেছে, সেগুলোর প্রমাণ আমাদের হাতে আছে। আমরা সেটা সংসদের স্ক্রিনে দেখাতে চাই ডকুমেন্টসহ। খাম্বা কোম্পানি তৈরি করার পর যে পরিমাণ লুটপাট করেছে, তার হিসাব আমাদের হাতে আছে, সময় হলে সব বের করব। নির্বাচন সামনে আসছে তো প্রস্তুত থাকেন। সব দেখাব। বিএনপি আমলে দিনের বেশিরভাগ সময় লোডশেডিং, বিদ্যুতের দাবিতে জনতার মিছিলে গুলির কথা তুলে ধরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাত নিয়ে কথা বলা বিএনপির মুখে শোভা পায় না। নসরুল হামিদ বলেন, বিএনপি আমলে অন্ধকারে ১৭ ঘণ্টা ছিলেন। বিদ্যুতের জন্য মানুষকে গুলি করে হত্যা করেছেন। সে সময় খালেদা জিয়া গিয়েছিলেন টঙ্গীতে বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করতে, ঢাকায় আসার আগেই বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ হয়ে যায়। এখন কোন মুখে সাহস করেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি নিয়ে কথা বলতে। হয়তো আপনাদের লজ্জাশরম নেই। বৈশ্বিক পরিস্থিতির কারণে বর্তমান সংকট সাময়িক উল্লেখ করে সংসদে নসরুল হামিদ বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি পরিস্থিতি উন্নতির চেষ্টা করছে সরকার। সাম্প্রতিক সময়






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply