Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে সুনাকের বার্তা




বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে সরব হওয়ার ঘোষণা দিলেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। তিনি দেশটির প্রথম অশ্বেতাঙ্গ প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, ছোটবেলায় তাকেও নানাভাবে বর্ণবিদ্বেষের শিকার হতে হয়েছে। একই সঙ্গে জাতি ও বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের বার্তাও দিয়েছেন তিনি। শনিবার (০৩ ডিসেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এ তথ্য। যুক্তরাজ্যে হঠাৎ বেড়ে গেছে বর্ণবিদ্বেষের মতো ঘটনা। এ নিয়ে কয়েকদিন ধরেই দেশটিতে চলছে বিতর্ক। রাজপরিবারে এ বিতর্কের জেরে সরিয়ে দেয়া হয়েছে এক রাজ সহকারীকে। ঘটনার সূত্রপাত গত ৩০ নভেম্বর। সেদিন রাজ পরিবারে ছিল এক বিশেষ অনুষ্ঠান। সেখানে আফ্রিকান বংশোদ্ভূত নাগরিক গোজি ফুলানি বর্ণবিদ্বেষের শিকার হন। সেই অনুষ্ঠানে অতিথিদের দেখভালের দায়িত্বে ছিলেন রাজ সহকারী সুজান হাসি। তাকে একপ্রকার হেনস্তা করেন রাজ সহকারী। গোজি অভিযোগ করে বলেন, সেই অনুষ্ঠানে তাকে বারবার সুজান জিজ্ঞেস করতে থাকেন যে তিনি কোন দেশের বাসিন্দা। সেই অনুষ্ঠানের পরের দিন বিষয়টি নিয়ে টুইট করেন গোজি। কালো বলেই তাকে এভাবে হেনস্তা করা হয়েছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন তিনি। আরও পড়ুন: ইসরাইলকে বর্ণবাদী রাষ্ট্র ঘোষণার আহ্বান সুজান হাসি যুবরাজ উইলিয়ামের ‘গডমাদার’ ছিলেন এবং কুইন কনসর্ট ক্যামিলার সহকারী হিসেবে কাজ করছিলেন। বর্ণবিদ্বেষের ওই ঘটনা সেই সময় ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেয়। এ নিয়ে সরব হয় বিভিন্ন গণমাধ্যম। প্রথমে এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক নীরব থাকলেও এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকরা তাকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ভারতীয় বংশোদ্ভূত হিসেবে ছোটবেলায় তাকেও নানা হেনস্তার সম্মুখীন হতে হয়েছে। আরও পড়ুন: জাতিসংঘে জলবায়ু-বর্ণবাদ ইস্যুতে সরব রাষ্ট্র প্রধানরা ঋষি সুনাকের জন্ম যুক্তরাজ্যে। বর্ণবাদ প্রসঙ্গে সুনাক জানান, তার দেশে জাতি ও বর্ণবিদ্বেষগত বৈষম্য অনেকটাই কমেছে। ৪২ বছর বয়সী এই রক্ষণশীল নেতা দেশটির বর্ণবাদ মোকাবিলায় অবিশ্বাস্য অগ্রগতির প্রশংসা করে বলেছেন, কখনও কেউ এ ধরনের হেনস্তার শিকার হলে সঙ্গে সঙ্গেই রুখে দাঁড়াতে হবে। আমাদের আরও উন্নত ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply