Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » জলবায়ু পরিবর্তন মানবিক সংকট বাড়াবে ২০২৩ সালে




জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ২০২৩ সালে বিশ্বজুড়ে মানবিক সংকট বাড়বে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে সশস্ত্র সংঘাত এবং অর্থনৈতিক সংকটের কারণে তা আরও নাজুক হবে। অলাভজনক আন্তর্জাতিক সংগঠন ইন্টারন্যাশনাল রেসকিউ কমিটির (আইআরসি) এক গবেষণা প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কভিত্তিক এই সংগঠনটির পরিচালক যুক্তরাজ্যের সাবেক রাজনীতিবিদ ডেভিড মিলিব্যান্ড। তিনি সতর্ক করে বলেছেন, আগামী বছর মানবিক সহায়তার প্রয়োজন এমন মানুষের সংখ্যা ব্যাপক হারে বাড়বে। গবেষণার বরাত দিয়ে তিনি বলেছেন, ২০২৩ সালে মানবিক সহায়তার প্রয়োজন পড়বে এমন মানুষের সংখ্যা হবে প্রায় ৩৪ কোটি (৩৩.৯২ কোটি)। ২০১৪ সালে এই সংখ্যা ছিল ৮ কোটির একটু বেশি। অর্থাৎ বিগত ৮ বছরে এমন মানুষের সংখ্যা ৪ গুণেরও বেশি বেড়েছে।  আইআরসির ‘ইমারজেন্সি ওয়াচলিস্ট-২০২৩’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে মানবিক সংকট তৈরি হবে সবচেয়ে। যেসব দেশ সবচয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে সেগুলোর মধ্যে শীর্ষ ২০টি দেশের তালিকা করা হয়েছে। তালিকার প্রথম দিকেই স্থান পেয়েছে হাইতি এবং আফগানিস্তান। অথচ এই দুটি দেশ মিলে বৈশ্বিক কার্বন ডাইঅক্সাইড নিঃসরণে মাত্র ২ শতাংশেরও কম অবদান রাখে। আরও পড়ুন: জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বাংলাদেশকে সহায়তা করবে জাতিসংঘ-এডিবি আইআরসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘২০২২ সাল দেখিয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তন যে বৈশ্বিক মানবিক সংকট বাড়াচ্ছে তা কোনোভাবেই অস্বীকার করার উপায় নেই।’ প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ২০২২ সালে বছরজুড়ে প্রবল বৃষ্টি, ‍ভূমিকম্প এবং বন্যা ব্যাপক হারে প্রাণহানি এবং ক্ষয়ক্ষতির কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে। যার ফলে সোমালিয়া ও ইথিওপিয়ার মতো দেশগুলোতে ব্যাপক খাদ্যসংকট দেখা দিয়েছে। পাকিস্তানে হাজারো মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। আইআরসি সতর্ক করে বলেছে, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা এবং ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসে আরও দ্রুত বিনিয়োগ এবং সম্মিলিত উদ্যোগ প্রয়োজন।  আরও পড়ুন: যুক্তরাজ্য উপকূলে নৌকা ডুবে ৪ জনের মৃত্যু কেবল প্রাকৃতিক দুর্যোগ নয় খাদ্য সংকটও অন্যতম প্রধান আশঙ্কার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধ ও কোভিড মহামারির কারণে বিশ্বের খাদ্য সংকট আরও বেড়েছে। আইআরসির প্রতিবেদন অনুসারে, বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে যে পরিমাণ মানবিক সহায়তা প্রয়োজন এবং যে পরিমাণ সহায়তা দেয়া হচ্ছে তার মধ্যে পার্থক্য ২ হাজার ৭০০ কোটি ডলার। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘দাতার পর্যাপ্ত সহায়তা দিতে ব্যর্থ হচ্ছে। ফলে দুর্গত সম্প্রদায়ের পক্ষে ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে পুনর্গঠন করে টিকে থাকাই কষ্টকর হয়ে গেছে।’






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply