Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » » কম কার্বন নিঃসরণকারী বাণিজ্যিক বিমান আনছে নাসা




কম কার্বন নিঃসরণকারী বাণিজ্যিক বিমান তৈরিতে কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা ও মার্কিন অ্যাভিয়েশন জায়ান্ট বোয়িং। 'সাসটেইনেবল ফ্লাইট ডেমোনস্ট্রেটর' প্রকল্পের আওতায় আগামী ৭ বছর নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানো হবে বলে জানায় সংস্থা দুটি। নাসার প্রধান বিল নেলসন নতুন বিমানের কাঠামো দেখাচ্ছেন। সূত্র: নাসা। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার পরিধিতে অ্যারোনটিক্যাল গবেষণাও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। আর তাই আগামী ৭ বছরে মার্কিন এই সংস্থা ‘সাসটেইনেবল ফ্লাইট ডেমোনেস্ট্রেটর (এসএফডি)’ প্রকল্পে ৪২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করবে। আর এই একই সময়কালে বোয়িং ও তাদের অংশীদাররা আনুমানিক আরও ৭২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয় করবে। এই ডিজাইনের বিমানগুলো বর্তমান সময়ের তুলনায় ৩০ শতাংশ পর্যন্ত জ্বালানি সাশ্রয়ী হবে এবং নিম্ন কার্বন নির্গমন করবে বলে জানানো হয়। নাসার প্রধান বিল নেলসন এক বিবৃতিতে বলেছেন, তাদের লক্ষ্য ভবিষ্যতের জন্য পরিবেশবান্ধব বাণিজ্যিক বিমান তৈরি করা। এগুলোতে যাত্রীদের জন্য সুবিধাসহ আরও জ্বালানি সাশ্রয়ী হবে। নেলসন আরও বলেন, যদি তারা সফল হয়, তাহলে ২০৩০ এর দশকের বাণিজ্যিক উড়োজাহাজগুলোতে এই প্রযুক্তিগুলোকে ব্যবহার হবে। আরও পড়ুন: পৃথিবীর মতো আরও একটি গ্রহের সন্ধান পেল নাসা টেকসই এই প্রকল্প ভবিষ্যতের জন্য বড় অবদান রাখাবে উল্লেখ করে বোয়িংয়ের প্রধান প্রকৌশলী গ্রেগ হাইসলপ বলেছেন, সাসটেইনেবল ফ্লাইট ডেমোনেস্ট্রেটর প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে প্রদর্শিত এবং পরীক্ষিত প্রযুক্তিগুলো ভবিষ্যতের ডিজাইনগুলোতে যুক্ত হবে। যার ফলে আগামী প্রজন্মের বিমানগুলো যুগান্তকারী এরোডাইনামিক ও জ্বালানি সাশ্রয়ী হবে। এসএফডি পরীক্ষা সফলভাবে সম্পন্ন হলে ২০২০ এর দশকের শেষ দিকে এই প্রযুক্তি এবং নকশা-পরবর্তী প্রজন্মের উড়োজাহাজে দৃশ্যমান সম্ভব হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আরও পড়ুন: নাটকীয়ভাবে স্থগিত নাসার চন্দ্রাভিযান






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply