Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

সাম্প্রতিক খবর


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

mujib

w

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » » সমুদ্র ভ্রমণের আশায় সব হারিয়ে হোটেল রুমে দম্পতি




বিলাসবহুল ক্রুজে চেপে বিশ্বকে ঘুরে দেখতে নিজেদের সবকিছু বিক্রি করে দিয়েছিলেন মার্কিন দম্পতি। পরিকল্পনা অনুযায়ী টিকিট বুকিংও করেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বিলাসবহুল ক্রুজ কর্তৃপক্ষ যাত্রা বাতিল করেন। এরপর গত এক মাস ধরে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে একটি হোটেল রুমে আটকে আছেন এই দম্পতি। রস্কের মিরে ক্রুজ দ্বারা পরিচালিত ক্রুজটির ১৪০টি দেশের ৩৮২টি বন্দরে যাত্রা বিরতির কথা ছিল। ছবি: সংগৃহীত নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই দম্পতির নাম কারা এবং জো ইউসেফ। বিলাসবহুল ক্রুজে চেপে বিশ্বভ্রমণের জন্য টিকিট কেটেছিলেন তারা। ১ নভেম্বর তুরস্কের ইস্তাম্বুল থেকে ছাড়ার কথা ছিল ক্রুজটির। শর্ত অনুযায়ী ৩ বছর ধরে সমুদ্রপথে ১৪০টি দেশ বেড়ানোর কথা ছিল তাদের। প্রতিবেদন অনুযায়ী, যাত্রা শুরুর একেবারে শেষ মুহূর্তে লাইফ অ্যাট সি ক্রুজেস নামের সংস্থাটি জানিয়ে দেয়, নির্দিষ্ট ক্রুজটির নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যা দেখা দিয়েছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আরেকটি ক্রুজ পেতে ব্যর্থ হওয়ায় আপাতত বিশ্বভ্রমণ বাতিল করা হয়েছে। এ নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে নিউইয়র্ক টাইমসকে কারা ইউসেফ বলেন, সমুদ্রপথে বিশ্বভ্রমণের এই স্বপ্ন পূরণের জন্য আমাদের যা ছিল সব বিক্রি করে দিয়েছি। কিন্তু এখন আমাদের সেই স্বপ্ন দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে। আরও পড়ুন: প্রমোদতরীতে বাকি জীবন কাটাতে সব বিক্রি বৃদ্ধ দম্পতির লাইফ অ্যাট সি ক্রুজ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শেষ মুহূর্তে তাদের সমুদ্রপথের যাত্রাটি বাতিল করা হয়েছে। তারা বলেছে, নিরাপত্তার কারণে সংশ্লিষ্ট ক্রুজটি ভ্রমণে যেতে আপত্তি জানালে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নতুন আরেকটি ক্রুজ জোগাড়ে ব্যর্থ হওয়ায় যাত্রাটি বাতিল করা হয়। কারা এবং তার স্বামী জো ইউসেফ নিউইয়র্ক টাইমসকে জানান, ভ্রমণের অর্থ সংগ্রহ করতে তাদের দুটি অ্যাপার্টমেন্ট, জীবনের সঞ্চয়সহ সব কিছু বিক্রি করে দিয়েছেন। এই দম্পতি অক্টোবরের শেষের দিকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ইস্তাম্বুলের উদ্দেশ্যে রওনা হন। ক্রুজ ১ নভেম্বর যাত্রা শুরুর কথা ছিল। পরে ১১ এবং ৩০ নভেম্বরে বদলায় জাহাজ ছাড়ার দিন। এরপর লাইফ অ্যাট সি ক্রুজ কোম্পানি জানিয়ে দেয়, নির্দিষ্ট ক্রুজটির নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যা দেখা দিয়েছে। ফলে আপাতত বাতিল করা হয়েছে বিশ্বভ্রমণ। এরপর থেকে এখনও ইস্তাম্বুলের একটি হোটেলে অবস্থান করছেন এই মার্কিন দম্পতি। তুরস্কের মিরে ক্রুজ দ্বারা পরিচালিত ক্রুজটির ১৪০টি দেশের ৩৮২টি বন্দরে যাত্রা বিরতির কথা ছিল। তিন বছরের সমুদ্রযাত্রার জন্য তাদের টিকিট বুকিংয়ে ব্যাপক চাহিদা ছিল বলে দাবি করেছে কোম্পানিটি। আরও পড়ুন: তুরস্ক ভ্রমণে লাগবে না ভিসা, নতুন ঘোষণা ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত ইউসেফরা এক মাস ধরে ইস্তাম্বুলের একটি হোটেলে আছেন। তবে ক্রুজ কোম্পানি থেকে এরইমধ্যে তারা টিকিটের কিছু অর্থ ফেরত পেয়েছেন। তবে এখনও ৮০ হাজার ডলার ফেরত পাবার অপেক্ষায় রয়েছেন। নিউইয়র্ক টাইমস জানায়, বিলাসবহুল সেই ক্রুজটিতে তিন বছরের সমুদ্রযাত্রার জন্য একটি ডাবল-অকুপেন্সি কেবিনে সবচেয়ে কম দামের কেবিনের মূল্য ১ লাখ ১৫ হাজার ৫০০ ডলার। তবে এই অর্থের মধ্যে খাবার, পানীয়, বিনোদন, সেমিনার এবং চিকিৎসা সব কিছুর সুবিধা রয়েছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারির মধ্যে বুকিং দেয়া টিকিটের সব অর্থ ফেরত দিতে যাত্রীদের সঙ্গে ক্রুজ কোম্পানির একটি চুক্তি হয়েছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply