Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

সাম্প্রতিক খবর


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

mujib

w

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » কট্টর ডানপন্থিদের ঠেকাতে জার্মানিতে বিক্ষোভ




জার্মানির রাজনীতিতে নতুন এক আতঙ্কের নাম রক্ষণশীল ডানপন্থি দল এএফডি বা অল্টারনেটিভ ফর ডয়েচলান্ড। পার্লামেন্টে বিরোধী এই রাজনৈতিক দলটিকে ঠেকাতে এবার একাট্টা জার্মানির সর্বস্তরের মানুষ। দলটিকে নিষিদ্ধ করতে বিভিন্ন প্রদেশে ডাক দেয়া হয় সমাবেশের। কট্টর ডানপন্থিবিরোধী বিক্ষোভে অংশ নেন জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলজ। এই মুহূর্তে জার্মানির যে রাজনৈতিক দলটিকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি আলোচনা ও সমালোচনা সেই দলটির নাম অলটারনেটিভ ফর ডয়েচলান্ড বা এএফডি। কট্টর ডানপন্থি মনোভাবের সাথে সাথে রাজনীতিতে উগ্র জাতীয়তাবাদে বিশ্বাস আর অভিবাসী বিদ্বেষসহ ইইউবিরোধী রাজনীতির জন্য এই দলটির কম বেশি সবার কাছেই পরিচিত। জার্মানির পরিসংখ্যান বলছে, সাবেক চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের রাজনৈতিক দল ক্রিস্টিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টি সিডিইউর পর দ্বিতীয় জনপ্রিয় রাজনৈতিক দলটির নাম এএফডি। এমনকি দেশটির ১৬টি অঙ্গরাজ্যগুলোর মধ্যে জাক্সেন, ব্রান্ডেনবুর্গ ও থুইরিঙ্গেনে এই দলের জনপ্রিয়তা এখন আকাশচুম্বী। আরও পড়ুন: জার্মানিতে সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পেলেন হামিদুল খান তবে এত জনপ্রিয়তার পরও দেশকে আবারও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে নাৎসী যুগে ফিরিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে কট্টর ডানপন্থি এই দলটির বিরুদ্ধে। এএফডির ফ্যাসিজম, চরমপন্থি রাজনীতি ও আদর্শ নিয়েও আলোচনা সমালোচনা চলে জার্মানির জাতীয় সংসদে। নব্য নাৎসির আখ্যা পাওয়া দলটিকে ঠেকাতে ঐক্যবদ্ধ জার্মানির অন্য সব রাজনৈতিক দলও। বুধবার (১৭ জানুয়ারি) এএফডির বিরুদ্ধে জার্মানির বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভের ডাক দেয়া হয়। ব্রান্ডেনবুর্গের পোস্টডামসহ নর্দরাইন ওয়েস্টফালেন অঙ্গরাজ্যের কোলনে এএফডিবিরোধী সমাবেশে অংশ নেন হাজার হাজার মানুষ। সমাবেশে চ্যান্সেলর শলজসহ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনেলেনা বেয়ারবকও ছিলেন উপস্থিত। আরও পড়ুন: তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু করতে পারে রাশিয়া, প্রস্তুতি নিচ্ছে জার্মানি তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নে দলের অবস্থান সুদৃঢ় করার পাশাপাশি, বিদেশি ঠেকাও মনোভাবের কারণে জার্মানির সাধারণ জনগণের ব্যাপক সমর্থন পাওয়া দলটিকে এত সহজে নিষিদ্ধ করা সম্ভব নয় বলে মনে করছেন জার্মানির রাজনীতি বিশ্লেষকরা।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply