Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » রাশিয়াকে শায়েস্তার জন্য মার্কিন পরিকল্পনায় দ. কোরিয়ার সমর্থন




ইউক্রেন যুদ্ধ যত তীব্র হচ্ছে, রাশিয়াকে শায়েস্তা করার জন্য ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রের বিকল্প পথ খুঁজে বের করার চেষ্টা ততই বাড়ছে। বৈশ্বিক তেল ও গ্যাস সরবরাহ ব্যবস্থায় কোনো ধরনের বিঘ্ন হবে না কিংবা দাম আকাশ ছোঁবে না এমন একটা পথ খুঁজছে যুক্তরাষ্ট্র। আর যুক্তরাষ্ট্রের এমন পরিকল্পনাকে সমর্থন করতে চায় দক্ষিণ কোরিয়া। দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করতে মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) মার্কিন অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেনের সাথে দেখা করেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইওন সুক-ইউল। এসময় রাশিয়ার তেলের দাম কমানোর মার্কিন পরিকল্পনায় দক্ষিণ কোরিয়া সমর্থন দিতে ইচ্ছুক বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট। জ্যানেট ইয়েলেন দক্ষিণ কোরিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রী চু কিয়ং-হোও’র সঙ্গে সিউলের লোটে হোটেলে এক সাক্ষাৎকারে দক্ষিণ কোরিয়া এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বিভিন্ন সহযোগিতা জোরদার করার উপায় নিয়ে আলোচনা করেছেন। কোরিয়া ন্যাশনাল অয়েল করপোরেশন পেট্রোনেটের তথ্য অনুসারে, গত বছর দক্ষিণ কোরিয়া তার অপরিশোধিত তেলের প্রায় ৫ শতাংশ রাশিয়া থেকে আমদানি করেছে। সর্বশেষ যে সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা হচ্ছে, তা হলো রাশিয়ার তেল কেনার ওপর প্রাইস ক্যাপ (সর্বনিম্ন মূল্য বেঁধে দেয়া) বসানো নিয়ে। ইয়েলেন শনিবার (১৬ জুলাই) সাংবাদিকদের জানান, তিনি ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে ২০ ফিন্যান্স কর্মকর্তাদের গ্রুপের একটি বৈঠকের পাশাপাশি ছয়টিরও বেশি প্রতিপক্ষের সঙ্গে প্রস্তাবিত মূল্য ক্যাপ সম্পর্কে ফলপ্রসূ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেছেন। আরও পড়ুন: দক্ষিণ কোরিয়া থেকে উড়ে আসা বেলুনে উত্তর কোরিয়ায় করোনা! দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘চারদিকে ব্যাপক সংকট বিশ্বকে হুমকির মুখে ফেলেছে। আমি আশা করি দক্ষিণ কোরিয়া এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে কৌশলগত জোট শক্তিশালী হবে। যাতে এটি রাজনীতি, সামরিক, জাতীয় নিরাপত্তা, শিল্প প্রযুক্তি এবং এমনকি অর্থনীতি ও অর্থের জোটে বিকশিত হতে পারে।’ প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে জানানো হয়, বৈঠকের সময় ইউন বলেছিলেন যে তিনি অর্থনৈতিক সুরক্ষায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ব নেতৃত্বকে সম্পূর্ণ সমর্থন করেন। যদিও তাদের সব কথোপকথন প্রকাশ করা হয়নি। ইউন এবং ইয়েলেন উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে কোনো নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আলোচনা করেছেন কি না সে বিষয়টিও পুরোপুরি স্পষ্ট নয়। ইয়েলেন তিন দিনের সফরে সোমবার (১৮ জুলাই) সন্ধ্যায় সিউলে পৌঁছান। ২০১৬ সালের জুনের পর এটি ছিল মার্কিন ট্রেজারি সেক্রেটারির প্রথম সিউল সফর।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply