Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » শ্রীলঙ্কা কতদিনে ঘুরে দাঁড়াবে, জালালেন বিক্রমাসিংহে




শ্রীলঙ্কা কতদিনে ঘুরে দাঁড়াবে, জালালেন বিক্রমাসিংহে অর্থনৈতিক সংকট কাটিয়ে শ্রীলঙ্কা কতদিনে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে তা জানালেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে। তিনি বলেছেন, শ্রীলঙ্কা আবারও ঘুরে দাঁড়াবে। এ ব্যাপারে তিনি আত্মবিশ্বাসী। এজন্য অন্তত ১৮ মাস সময় লাগবে। সম্প্রতি আল জাজিরাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন প্রবীণ এ রাজনীতিক। ১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর এ যাবৎকালের সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলা করছে শ্রীলঙ্কা। করোনা মহামারি, সরকারের দুর্নীতি ও অদক্ষতা, বিশ্বজুড়ে জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি এবং রাষ্ট্রীয়

কোষাগারে বৈদেশিক মুদ্রার মজুত তলানিতে নেমে যাওয়ায় এ বিপর্যয়কর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সংকট মোকাবিলায় গত মে মাসে ৬ষ্ঠ বারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন বিক্রমাসিংহে। দায়িত্বগ্রহণের প্রায় দুই মাস পর গত বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরাকে একটি সাক্ষাৎকার দেন তিনি। রাজধানী কলোম্বোর সরকারি বাসভবনে বসে রণিলের দেয়া ওই সাক্ষাৎকারটি মঙ্গলবার (৫ জুলাই) প্রকাশ করা হয়েছে। আরও পড়ুন : চরম খাদ্য সংকটে শ্রীলঙ্কা, শিশুদের দুধও মিলছে না সাক্ষাৎকারে শ্রীলঙ্কার বিভিন্ন সমস্যা ও সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেছেন ৭৩ বছর বয়সী বিক্রমাসিংহে। তিনি বলেন, এক অস্বাভাবিক সময়ে শ্রীলঙ্কার দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি। তার ভাষায়, আমরা প্রায় দুই দিন সরকারবিহীন অবস্থায় ছিলাম। সবকিছু নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছিল। সেসময় শ্রীলঙ্কাজুড়ে সর্বোচ্চ পর্যায়ে ছিল গণ-আন্দোলন। পরিস্থিতি সেই তুলনায় কিছুটা শান্ত হলেও সংকটের কোনো সমাধান হয়নি। দেশটিতে গত কয়েক মাস ধরেই জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সংকট অব্যাহত রয়েছে। দেশের নাজুক পরিস্থিতি নিয়ে বিক্রমাসিংহে বলেন, আমি দেখলাম দেশের পরিস্থিতি খুবই খারাপ। কিন্তু এটাতো আমারই দেশ। তাই সফল হব কি হবো না তা ভাবার সময় ছিল না। আমি ক্ষমতা গ্রহণ করলাম এবং এখন আমি দেশকে সফল করতে কাজ করে যাব। আমি এখন আত্মবিশ্বাসী যে, দেশের অর্থনীতির গতিপথ বদলে দিতে পারব। তিনি আরও যুক্ত করেন, আমরা ভারতীয় ঋণ ও রেমিট্যান্স থেকে পাওয়া অর্থ ব্যবহার করে তেল কিনছি। যদিও তা সামান্য কিন্তু তারপরেও কখনো এক বিলিয়ন কিংবা অর্ধ বিলিয়ন ডলারের জ্বালানি আমদানি হচ্ছে। রিজার্ভের বাকি পুরোটাই ব্যয় হয়ে গেছে। আরও পড়ুন : ‘এশীয় ন্যাটো’ ঠেকাতে সামরিক সক্ষমতা বৃদ্ধির ইঙ্গিত উত্তর কোরিয়ার জ্বালানি সংকট নিয়ে কিছুটা আশার কথাও শোনান লঙ্কান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, দেশের অর্থনীতির জন্য এটি ছিল বড় ধাক্কা। মানুষকে অনেক ভুগতে হচ্ছে এ জন্য। তবে আমরা এখন পদক্ষেপ নিচ্ছি। বিশেষ করে গ্যাসের ক্ষেত্রে। আগামি কয়েক দিনের মধ্যেই গ্যাসের সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে। ডিজেলের চাহিদা পূরণেও উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তবে পেট্রোল নিয়ে ইস্যু রয়েই গেছে। এটির সমাধান করতে সময় লাগবে। গ্যাস নিয়ে বিশ্ব ব্যাংকের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে বলে জানান বিক্রমাসিংহে। এর ফলে কমপক্ষে ৪ মাস শ্রীলঙ্কাকে গ্যাস নিয়ে ভাবতে হবে না। এছাড়া আইএমএফ-এর সঙ্গেও সমঝোতায় পৌঁছেছে দেশটি। সংস্থাটি থেকে সাহায্য নিয়ে অর্থনীতি স্থিতিশীল করার চেষ্টা করবে দ্বীপরাষ্ট্রটি। পার্লামেন্টে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবেন প্রধানমন্ত্রী বিক্রমাসিংহে। এছাড়া সামনের আগস্ট মাসে একটি মধ্যবর্তী বাজেট ঘোষণারও পরিকল্পনা রয়েছে তার সরকারের।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply