Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » জীবনের শেষ ওয়ানডে খেলতে নামলেন স্টোকস




একদিন আগেই ওয়ানডে থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছিলেন ইংল্যান্ডের সাদা পোশাকের অধিনায়ক বেন স্টোকস। মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) জীবনের শেষ একদিনের ম্যাচ খেলতে নামলেন ইংলিশ এ অলরাউন্ডার। স্টোকসের বিদায়ী ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে টস হেরে ফিল্ডিং করছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। চেষ্টার লি স্ট্রিটে বিস্বাদের ছায়া। বেন স্টোকস যখন মাঠে নামলেন, চারদিকে করতালি। প্রিয় খেলোয়াড়কে বিদায় জানাতে এদিন যেন গ্যালারি উপচে পড়ছে। সোমবার (১৮ জুলাই) দিনটা ইংলিশ তথা ক্রিকেট সমর্থকদের কাছে দুঃসহ স্মৃতি হয়েই রইল। ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের নায়ক বেন স্টোকস এদিন হঠাৎ করেই ওডিআই ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে দেশের হয়ে আজকেসহ ১০৫টি ম্যাচ খেলেছেন স্টোকস। এখন পর্যন্ত তিনি করেছেন ২ হাজার ৯১৯ রান। বল হাতে নিয়েছেন ৭৪টি উইকেট। ওয়ানডেতে স্টোকস সবচেয়ে বেশি স্মরণীয় ২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে বীরত্বসূচক ইনিংসের জন্য। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে অপরাজিত ৮৪ রানের এক ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। নাটকীয়তার ওই ম্যাচে স্টোকসের কল্যাণে সুপার ওভারে গিয়ে শিরোপা জিতে ইয়ন মরগ্যান বাহিনী। স্টোকস নির্বাচিত হন ম্যাচসেরা খেলোয়াড়। আরও পড়ুন : স্টোকসের অবসর: আইসিসির ওপর ক্ষোভ নাসেরের অবসরের ঘোষণা দিয়ে স্টোকস বলেছেন, ‘আমি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ডারহামে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচটি খেলব। এ ফরম্যাট থেকে আমি অবসর নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমার জন্য এ সিদ্ধান্ত নেয়া ছিল অনেক কঠিন। এ ফরম্যাটে সতীর্থদের সঙ্গে যতক্ষণ খেলেছি, প্রতিটি মুহূর্তকে উপভোগ করেছি।’ স্টোকস আরও যোগ করেন, ‘আমি বুঝতে পারছি, এ ফরম্যাটে দলকে শতভাগ দিতে পারব না। কিন্তু দল তো এর চেয়ে বেশি কিছু প্রাপ্তির দাবিদার। টেস্ট ক্রিকেটে আমি সবটা উজাড় করে দিতে চেষ্টা করব। পাশাপাশি টি-টোয়েন্টিতেও ভালোভাবে মনোনিবেশ করতে পারব বলে মনে করি।’ এদিকে, প্রোটিয়াদের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে দিয়ে দলে ফিরলেন অভিজ্ঞ স্পিনার আদিল রশিদ। হজ পালনের কারণে ভারতের বিপক্ষে সিরিজে ছিলেন না তিনি। আরও পড়ুন : একদিনে অবসরে তিন তারকা ক্রিকেটার ইংল্যান্ড একাদশ জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো, জো রুট, বেন স্টোকস, জস বাটলার (অধিনায়ক ও উইকেটকিপার), মঈন আলি, লিয়াম লিভিংস্টোন, স্যাম কারেন, আদিল রশিদ, ব্রাইডন কার্স এবং ম্যাথিউ পটস। দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ জানেমান মালান, কুইন্টন ডি কক (উইকেটকিপার), রাসি ভ্যান ডার ডোসেন, এইডেন মার্কাম, হ্যানরিখ ক্লাসেন, ডেভিড মিলার, আন্ডেলে পেহলাকায়ু, কেশভ মহারাজ (অধিনায়ক), এনরিখ নর্টজে, লুঙ্গি এনগিদি এবং তাবরিজ শামসি।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply