Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » মহাজোট ছাড়াই ২০২৪ লোকসভা ভোটে মোদীকে হঠানো সম্ভব: ডেরেক




ডেরেকের যুক্তি, বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেস ৪০টি আসন পাবে। এভাবেই বিভিন্ন রাজ্যের নেতাদের মোদীর বিরুদ্ধে জয়ী হতে হবে। মহাজোটের কোনও প্রয়োজনই নেই। একমাত্র ৩-৪ রাজ্যে বিরোধীদের মহাজোট প্রয়োজন : রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধীরা এককাট্টা হতে পারেনি। তাতে কী। তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়নের দাবি, ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিরোধীদের মহাজোট না হলেও মোদীকে হঠানো সম্ভব। কিন্তু কী ভাবে? ডেরেকের প্রেসক্রিপশন হল, ২০২৪ এর ভোট জাতীয় নির্বাচন হিসেবে না লড়ে লড়াইয়ে নামতে হবে রাজ্য ধরে ধরে। প্রতিটি রাজ্যে বিরোধী ভোট একজোট করতে পারলেই কেন্দ্র থেকে সরানো যাবে বিজেপিকে। ডেরেক ট্যুইট করেছেন, ২০২৪ সালে মোদীকে হারানো সম্ভব। আমরা মত হল এটা একজনের পক্ষে সম্ভব নাও হতে পারে। আমরা দেখেছি বিভিন্ন রাজ্য়ে মোদীকে ধাক্কা দিয়েছেন বিভিন্ন নেতা। এভাবেই কেন্দ্র থেকে বিজেপিকে সরানো সম্ভব। আরও পড়ুন-বৃষ্টি কমতেই ভ্যাপসা গরম শহরে, বাড়ল তাপমাত্রাও বিরোধীদের হাতে রয়েছে বিহার, পঞ্জাব, রাজস্থান, পশ্চিমবঙ্গ, কেরালা-সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে। কিন্তু দেখা গিয়েছে গত লোকসভা ভোটের পর একাধিক লোকসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে জিতেছে বিজেপি। অর্থাত্ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা যে বলেন, কেন্দ্র এখনও মানুষ বিজেপির উপরেই আস্থা রাখে, উপনির্বাচনের ফল তারই প্রতিফলন। কিন্তু ডেরেকের যুক্তি, বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেস ৪০টি আসন পাবে। এভাবেই বিভিন্ন রাজ্যের নেতাদের মোদীর বিরুদ্ধে জয়ী হতে হবে। মহাজোটের কোনও প্রয়োজনই নেই। একমাত্র ৩-৪ রাজ্যে বিরোধীদের মহাজোট প্রয়োজন। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে আশা জাগিয়েও মুখ থুবড়ে পড়েছে বিরোধীরা। তাই লোকসভা নির্বাচনে যোগী রাজ্যে বিরোধীদের খুব ভালো কিছু আশা রয়েছে বলে মনে করছেন না রাজনৈতিক ওয়াকিবহাল মহল। রাজ্যের নির্বাচনের কথা যদি মাথায় যায় তাহলে লোকসভা নির্বাচন লড়তে হবে আঞ্চলিকভাবেই। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী এমন একজন ব্যক্তিত্ব যিনি মোদীর মোকাবিলা করতে পারবেন। এভাবেই তেলঙ্গানা ও তামিলনাডুতে সেখানকার নেতারা মোদীকে ঠেকিয়ে দিতে পারবেন। এনিয়ে তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন বলেন, এক নায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে বিজেপি। বহুদলীয় গণতন্ত্রে আঞ্চলিক দলগুলির গুরুত্ব সবসময় বেশি। বিভিন্ন রাজ্য বিভিন্ন আঞ্চলিক দল ক্ষমতাশালী। তাই আমাদের নেত্রী বারবারই বলেছেন, যেখানে যে দল ক্ষমতাবান সেখানে তাদেরকে ফ্রি হ্যান্ড দিতে হবে। বাকীদের তাকে সমর্থন করাই কাম্য। অন্যদিকে, কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্য বলেন, বিরোধী জোট শক্তিশালী না হলে বিজেপিকে হঠানো সম্ভব নয়। ডেকের যেটা বলছেন সেটা তাঁর নিজস্ব ধারনা। কিন্তু এই ধারনার সঙ্গে বাস্তাবের কতটা যোগ রয়েছে তা নিয়ে আমার সন্দেহ রয়েছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply