Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » রাশিয়ার ভয়ংকর হামলায় ইউক্রেনের ৪৫ লাখ মানুষ বিচ্ছিন্ন




ইউক্রেনের ৪৫ লাখ মানুষ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। একইসঙ্গে মস্কোর বিরুদ্ধে জ্বালানি সন্ত্রাসের অভিযোগও তোলেন তিনি। এদিকে ইউক্রেন নিজেদের দেশে ডার্টি বোমা ব্যবহারের পরিকল্পনা করছে এমন প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে দাবি করেছে জাতিসংঘের তদন্তকারী দল। রুশ বাহিনীর অবস্থান লক্ষ্য করে চলছে মুহুর্মুহু রকেট হামলা। রাশিয়ার অধিভুক্ত করে নেয়া লুহানস্ক সীমান্ত থেকে রুশ সেনাদের অবস্থানে বৃহস্পতিবার হামলা চালায ইউক্রেনীয় বাহিনী। ইউক্রেনের যে চার অঞ্চল রাশিয়া অধিভুক্ত করেছে সেগুলো পুনর্দখলের উদ্দেশ্যে হামলা জোরদার করেছে কিয়েভ। বসে নেই রুশ বাহিনীও। প্রতিদিনই ইউক্রেনের বিভিন্ন অঞ্চলে দফায় দফায় হামলা চালাচ্ছে দেশটি। দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় বারমুখ শহরে বৃহস্পতিবার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় রাশিয়া। এতে বেশ কয়েকটি ভবন বিধ্বস্ত হয়ে যায়। কয়েকটি ভবন থেকে ধোঁয়া উঠতে দেখা যায়। যে কোনো সময় আরও হামলার আশঙ্কায় বাইরে খুব কম বের হন সাধারণ মানুষ। রুশ বাহিনীর হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিদ্যুৎ অবকাঠামো। বেশ কিছুদিন ধরেই বিদ্যুৎহীন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন অনেক মানুষ। দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির দাবি অন্তত ৪৫ লাখ মানুষ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে অন্ধকারে দিন কাটাচ্ছেন। জেলেনস্কি বলেন, আপনারা প্রয়োজন ছাড়া বিদ্যুৎ খরচ করবেন না। স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে নজর দিতে হবে, সাধারণ মানুষকে বোঝাতে হবে যে কোথায় কখন আলো জ্বলবে না। সবাইকে একসঙ্গে এ পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হবে। আরও পড়ুন: ইউক্রেনের বন্দর ছেড়েছে খাদ্যশস্যবাহী ছয় জাহাজ রাশিয়া অভিযোগ করেছিল ইউক্রেন নিজেদের দেশে নিজেরা ডার্টি বোমা ব্যবহারের পরিকল্পনা করছে। এ বিষয়ে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল তদন্ত করতে কিয়েভে যায়। তদন্তের পর তারা জানিয়েছে ইউক্রেনে ডার্টি বোমা ব্যবহারের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এদিকে সামরিক জোট ন্যাটো প্রধান জেনস স্টোলটেনবার্গের দাবি, ইরান রাশিয়াকে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহ করে থাকতে পারে। একইসঙ্গে তেহরান মস্কোকে ড্রোন সহায়তা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। তুরস্কের ইস্তাম্বুল সফরে গিয়ে তিনি বলেন, সময় এসেছে ফিনল্যান্ড এবং সুইডেনকে ন্যাটোর সদস্যপদ দেযার। তবে বরাবরের মতোই বিরোধিতা করে তুরস্ক বলেছে এ দুই দেশ তাদের প্রতিশ্রুতি এখনও পূরণ করতে পারেনি। কুর্দি সশস্ত্র যোদ্ধাদের আশায় ন্যাটো সদস্যপদের জন্য করা আবেদনে ভেটো দিয়ে রেখেছে তুরস্ক।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply